ব্রনাইয়ের ইসলামিক আইন মানবাধিকারের লঙ্ঘন ঃ জাতিসংঘ

ঢাকা অফিস ॥ ব্র“নাই সমকামিতা এবং ব্যাভিচারের জন্য পাথর ছুড়ে হত্যার মতো কঠোর ইসলামিক আইন বাস্তবায়ন করে মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে বলে সমালোচনা করেছে জাতিসংঘ। ব্র“নাই বুধবার সমকামিতা, বিবাহ বহির্ভূত যৌন সম্পর্ক এবং ধর্ষণের জন্য ওই কঠোর ইসলামিক শরীয়া আইন চালুর ঘোষণা দিয়েছে। একইসঙ্গে চুরির জন্য অঙ্গচ্ছেদের মত বর্বর শাস্তিও চালু করেছে। জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক বলেছেন, “জাতিসংঘ মহাসচিব এন্তনিও গুতেরেস মনে করেন, যে কোনোখানে কোনোরকম বৈষম্য না করে প্রতিটি মানুষের জন্যই মানবাধিকার সমুন্নত রাখা উচিত। অনুমোদিত আইনটি এই নীতির স্পষ্ট লঙ্ঘন। প্রতিটি মানুষেরই স্বাধীনভাবে সমান মর্যাদা এবং অধিকার নিয়ে বাঁচার এখতিয়ার আছে।” আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনানুযায়ী, যে কোনো পরিস্থিতিতে পাথর ছোড়া, অঙ্গচ্ছেদ অথবা বেত্রাঘাত, আইনি সংস্থাগুলোর হেফাজতে নিয়ে নির্যাতনসহ সব ধরনের শারীরিক শাস্তি নিষিদ্ধ। স্বাক্ষর করলেও ব্র“নাই এখনও নির্যাতন ও অন্যান্য নিষ্ঠুর, অমানবিক শাস্তির বিষয়ে ঘোষণাপত্র অনুমোদন করেনি। ২০১৪ সালে জাতিসংঘে দেশটির মানবাধিকার সংক্রান্ত পর্যালোচনায় ওই ঘোষণাপত্রের সব সুপারিশ বাস্তবায়ন করতে অস্বীকার করে তারা।

 

আরো খবর...