বীমার প্রতি মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করতে হবে

কুষ্টিয়া জাতীয় বীমা দিবসে ডিসি আসলাম হোসেন

আরিফ মেহমুদ ॥ কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন বলেছেন- আমাদের দেশে বীমা নিয়ে মানুষের মধ্যে সচেতনতা কম। মানুষের মধ্যে বীমার বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। বীমার গুরুত্ব বোঝাতে হবে। এখন মানুষ কিন্তু অনেক বেশি সচেতন। বীমার প্রতি মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করতে হবে। বীমা সেবাটাকে সহজীকরণে আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার অপরিহার্য। এটা করলে দুর্নীতি দূর হবে মানুষের মাঝে বীমা সম্পর্কে ভুল বোঝাবুঝি দুর হবে। ফলে এ থেকে মানুষ উপকার পাবে। বীমার প্রতি মানুষের আস্থাও বাড়বে। গতকাল রবিবার সকালে জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে এদেশে প্রথম জাতীয় বীমা দিবস পালন উপলক্ষে লিডিং ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীর সহযোগীতায় ও কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের আয়োজনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলে, বীমার সব হিসাব-নিকাশ অটোমেশন পদ্ধতিতে আনলে মানুষের আস্থা বাড়বে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু বীমার গুরুত্ব বুঝতে পেরেছিলেন বলেই এ বিষয়ে তিনি ১৯৭৩ সালে আইন প্রণয়ন করেছিলেন। এ ছাড়া তিনি ইন্স্যুরেন্স একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেন। বীমাকে জনগণের  দোরগোড়ায় নিয়ে যেতে হবে। শিক্ষাবীমা, শস্যবীমা, স্বাস্থ্যবীমা, গার্মেন্টস শ্রমিকসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বীমা করা যেতে পারে।  যে বীমার মাধ্যমে দুঃসময়ে গরিব মানুষগুলো বিরাট সাফল্য পাবে। ’বীমা দিবসে শপথ করি, নিরাপদ জীবন গড়ি’ এই শে¬াগানকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় কুষ্টিয়াতেও বর্ণাঢ্য র‌্যালী আলোচনা-সভার মধ্যদিয়ে জাতীয় বীমা দিবস পালিত হয়েছে। ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীর সহযোগীতায় ও কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ উপলক্ষ্যে সকাল ১০টায় কুষ্টিয়া কালেক্টরেট চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে কালেক্টরেট চত্বরে এসে সভাকক্ষে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজাদ জাহানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জাহিদুল ইসলাম, কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্সের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী ফারুক-উজ-জামান, ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীর চীফ জোনাল ম্যানেজার কুষ্টিয়া জোন মিজানুর রহমান প্রমুখসহ বীমা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। আলোচনা শেষে লিডিং কোম্পানী ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী মেয়াদ উত্তর, মৃত্যুদাবীসহ বিভিন্ন সারভাইবেল বেনিফিট এর প্রায় ২০ লক্ষ টাকার চেক প্রদান করেন। এছাড়াও অন্য কোম্পানীরাও এই চেক প্রদান করেন। জেলায় জাতীয় বীমা দিবস পালনের এই অনুষ্ঠানে জেলার লাইফ, নন লাইফ মিলে ৪৩ কোম্পানী অংশ নেন।

আরো খবর...