‘বিশেষ ব্যবস্থায়’ থাকবেন মুজিববর্ষের অতিথিরা – স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ বিশ্বজুড়ে প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষাপটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যেসব বিদেশি অতিথি আসবেন, তাদের ‘বিশেষ ব্যবস্থায়’ রাখা হবে বলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন। বাংলাদেশে এখনও এই ‘ভাইরাস সংক্রমণ না ঘটায়’ আগামী ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বাতিলের প্রয়োজন দেখেছেন না বলেও জানিয়েছেন তিনি। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী সাড়ম্বরে উদযাপন করবে বাংলাদেশ; বছরব্যাপী এই অনুষ্ঠানমালা শুরু হবে আগামী ১৭ মার্চ। মুজিববর্ষের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। করোনাভাইরাস নিয়ে সবশেষ পরিস্থিতি তুলে ধরতে মঙ্গলবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। প্রাণঘাতী এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কার মধ্যে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বাতিলের কোনো পরিকল্পনা আছে কি না, স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে এই প্রশ্ন করেন একজন সাংবাদিক। জবাবে মন্ত্রী বলেন, “এই অনুষ্ঠান বাতিল করার এখতিয়ার আমাদের হাতে না। আমরা এ বিষয়ে এখন নিশ্চিত করে বলতে পারব না। আমাদের দেশে তো (করোনাভাইরাস) সংক্রমণ হয়নি যে অনুষ্ঠান বাতিল করতে হবে। যারা সিদ্ধান্ত দিতে পারবেন তারা পরিস্থিতি বুঝেই এটা পরবর্তী পদক্ষেপ নেবেন। “(বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে) যারা বিদেশ থেকে আসবেন তাদেরকে আমরা বিশেষ ব্যবস্থায় রাখব, তারা তো অল্প সময় থাকবেন। আশা করি, তারা ভালো থাকবেন, সুস্থ্ থাকবেন, সেইফ থাকবেন। তাদের যদি কোনো রকমের চিকিৎসার দরকার হয়, ব্যবস্থা তো আছে। ১৬ কোটি লোকের জন্য ব্যবস্থা আছে, তাদের জন্যও আমরা ব্যবস্থা নেব।” স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম বলেন, “(বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে) সিলেকটেড হাইপ্রোফাইল গেস্ট আসবেন, তারা নিশ্চয় সচেতন। আর যে স্ক্রিনিং হচ্ছে সেটা ভিআইপি, সাধারণ প্যাসেঞ্জার সবাইই কিন্তু ওই প্যাসেজ দিয়েই আসবেন।” ভারতে করোনাভাইরাস ধরা পড়ার খবর প্রকাশের পরেও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের ভারত সফরের প্রসঙ্গ তুলে ধরেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, “ভারতে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। এই পরিস্থিতির মধ্যেও কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ট এসেছেন। আমাদের জাতীয় পর্যায়ের প্রস্তুতি আছে, মুজিববর্ষ অবশ্যই উদযাপন করা উচিত।ৃ তবে যারা আয়োজনে আছেন তারা অবশ্যই সম্পূর্ণ সতর্কতা অবলম্বন করেই সব কিছু করবেন।” করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে বিশ্বের অনেক দেশে বহু অনুষ্ঠান বাতিল হওয়ার তথ্য জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “যেখানে মানুষ জড়ো হবে সেই অনুষ্ঠান বাদ দেওয়া হয়েছে। হ্যান্ডশেকটা আমরা আপাতত না করি, বাড়িতে গিয়ে কোনো কিছু ধরার আগে হাত ও মুখটা সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলি। “বাংলাদেশের প্রায় এক কোটি মানুষ বাইরে চাকরি করেন। যারা বিদেশে চাকরি করেন এই মুহূর্তে দেশে আসা বা দেশ থেকে যাওয়া জরুরি না হলে অ্যাভয়েড করতে হবে। “কারণ আমরা চাই না, আমাদের দেশ আক্রান্ত হয়ে যাক বা আমাদের বাঙালি যারা বিদেশে আছেন তারাও চান না দেশে তাদের পরিবার আক্রান্ত হয়ে যাক।”

আরো খবর...