বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসা হচ্ছে না – ফখরুল

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, তাকে শুধু রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে কারাগারে বন্দি রেখে শাস্তি দেয়া হচ্ছে। এই মুহূর্তে তার উন্নত চিকিৎসার জন্য অ্যাডভান্স সেন্টারে পাঠানো উচিত। গতকাল সোমবার বিকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে তথ্য তুলে ধরেন তিনি। ফখরুল বলেন, বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসা হচ্ছে না। অবিলম্বে তার মুক্তি দাবি করছি। অন্যথায় কিছু হলে সবকিছুর জন্য দায়ী থাকবে সরকার। খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে তিনি আরও বলেন, দেশনেত্রী গুরুতর অসুস্থ। তিনি কিছু খেতে পারছেন না। যা খাচ্ছেন তা বেরিয়ে আসছে। বিছানা থেকে দশ কদম দূরে বাথরুমে একাই যেতে পারেন না। যেতে হলে দু’জনের সাহায্য নিতে হয়। খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য অনুমতি চেয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে একাধিকবার চিঠি দেয়া হলেও এখনও তার জবাব পাইনি উল্লেখ করে আবারও চিঠি দেবেন বলে জানান বিএনপি মহাসচিব। এ সময় বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ড্যাবের সাবেক মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন বলেন, খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ। তিনি এখন ক্রিপল্ড অর্থাৎ পঙ্গু হয়ে গেছেন। তিনি শুধু বিএনপির চেয়ারপারসন নন, তিনি দেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী, তার বয়স ৭৬। তার ডায়াবেটিস অনিয়ন্ত্রিত। তিনি বলেন, বিএসএমএমইউর মেডিকেল বোর্ড বলছে– তার অ্যাডভান্স থেরাপি দরকার। অ্যাডভান্স থেরাপি দিতে হলে এই প্রতিষ্ঠানটি কি অ্যাডভান্স প্রতিষ্ঠান? মেনে নিলাম তাদের (বিএসএমএমইউ) মধ্যে অনেক চিকিৎসক রয়েছেন, যারা সত্যি সত্যি স্বনামধন্য ও আঞ্চলিকভাবে তারা অত্যন্ত স্বীকৃত। প্রশ্ন রেখে অধ্যাপক জাহিদ হোসেন আরও বলেন, এখানে যদি অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্ট দেয়ার সর্বাধুনিক সুযোগ থাকত; তাহলে কেন কয়েকদিন আগে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের অসুস্থ হয়ে ভর্তি হওয়ার পরে তাকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ট্রান্সফার করতে হয়েছিল সিঙ্গাপুরে? তিনি বলেন, সিএমএইচ খুব ভালো, কয়েকদিন আগেও প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব জয়নুল আবেদীনকে ট্রান্সফার করতে হয়েছিল সিঙ্গাপুরে? অর্থাৎ অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্ট দরকার অ্যাডভান্স সেন্টারে। সেই অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্টের সুযোগ বিএসএমএমইউতে কি আছে? চিকিৎসার জন্য তাকে অ্যাডভান্স সেন্টারে নেয়া প্রয়োজন। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন প্রমুখ।

আরো খবর...