বাংলাদেশ-ভারতের খেলোয়াড়দের বয়স ছিল বেশি- বিষেণ সিং বেদি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে বিশ্বজয় করেছে বাংলাদেশ। অনন্য এই অর্জনের পর বাংলাদেশের বন্দনা চলছে বিশ্ব জুড়ে। অপরদিকে ভারতের হারে চরম হতাশ দেশটির ভক্তরা। এরই মাঝে এক বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন সাবেক ভারতীয় স্পিনার বিষেণ সিং বেদি। তার মতে, এবারের যুব বিশ্বকাপের সেমিতে খেলা এশিয়ার দেশগুলোর খেলোয়াড়দের প্রত্যেকের বয়স নাকি ১৯ বছরের বেশি। ভারতের সাবেক এ অধিনায়ক বলেন, ‘ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ-এশিয়ার যেসব দেশ সেমিফাইনালে উঠেছে, তাদের প্রত্যেক খেলোয়াড় অনূর্ধ্ব -১৯ নয়। আপনি এক মাইল দূরে দাঁড়িয়ে থেকেও এটা বুঝতে পারবেন। কয়েক বছর আগে বয়সের বিষয়টি নিয়ে রাহুল দ্রাবিড় বক্তব্য রেখেছিলেন। আমাদের হয়েছেটা কী? আমি অনেক হতাশ।’ এ ছাড়া ফাইনাল ম্যাচের পর মাঠে দুই দেশের খেলোয়াড়দের ধাক্কাধাক্কির ঘটনায় বিরক্ত তিনি। বলেন, ‘দেখুন, বাংলাদেশ কী করে তা তাদের সমস্যা। আমাদের ছেলেরা যা করে তা আমাদের সমস্যা। আপনি দেখতে পাচ্ছিলেন যে এখানে আপত্তিজনক ভাষা ব্যবহার করা হয়েছিল।’ ভারতীয় খেলোয়াড়দের আচরণে ক্ষিপ্ত বিষেণ সিং বেদি বলেন, ‘আপনি ব্যাট, বলে খারাপ করতে পারেন। কিন্তু মাঠে এমন বাজে আচরণ করার কোন অজুহাত নেই। আচরণটি ছিল জঘন্য এবং সবচেয়ে লজ্জাজনক। এজন্য কোচ, টিম ম্যানেজারকে তাড়িয়ে দেওয়া উচিত। দ্রাবিড়কে অবশ্যই এর জবাব দিতে হবে।’ এদিকে ওই ঘটনায় বাংলাদেশ ও ভারতের পাঁচ ক্রিকেটারকে শাস্তি দিয়েছে আইসিসি। বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের মধ্যে শাস্তিপ্রাপ্তরা হলেন- তওহিদ হৃদয়, শামিম হোসেন এবং রাকিবুল হাসান। এদের প্রত্যেকেই আইসিসির কোড অব কন্ডাক্ট ভঙ্গ করেছেন এবং প্রত্যেককে ৬টি করে ডিমেরিট পয়েন্ট দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে, ভারতের আকাশ সিং এবং রবি বিষ্ণয়কে পাঁচটি করে ডিমেরিট পয়েন্ট দেওয়া হয়েছে। গত রবিবার দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে ভারতকে ৩ উইকেটে হারিয়ে বিশ্বকাপের শিরোপা জেতে বাংলাদেশ। ম্যাচ শেষে হতাশ ভারতীয়দের সামনে যখন উদযাপনে ব্যস্ত বাংলাদেশ যুব দল, সেসময় টিভি সম্প্রচারের ক্যামেরায় দেখা যায় দুদলের খেলোয়াড়দের জটলা ও ধাক্কাধাক্কি।

আরো খবর...