প্রশাসনের তদারকীর মধ্যদিয়ে কুমারখালীতে সরকারি ত্রাণসামগ্রী যাচ্ছে হতদরিদ্র মানুষের হাতে

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ প্রশাসনের তদারকীর মধ্যদিয়ে কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে সরকারি ত্রাণ সামগ্রী (চাল ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য) হতদরিদ্র মানুষের হাতে পৌঁছাচ্ছে। গত শনিবার নন্দলালপুর ইউনিয়নের হাবাসপুর আশ্রয়ণের হতদরিদ্র বাসিন্দাদের ঘরে ঘরে সরকারি ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দিয়ে এই বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন, কুষ্টিয়া-৪ (খোকসা-কুমারখালী) আসনের সংসদ সদস্য সেলিম আলতাফ জর্জ।  এ সময় কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদেরকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী সরকারি ত্রাণ সামগ্রী সুষ্ঠুভাবে প্রতিটি হতদরিদ্র মানুষের ঘরে পৌঁছে দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে এবং ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে যেন কোন প্রকার অনিয়ম না হয় সেদিকেও খেয়াল রাখতে বলেন তিনি। কুমারখালী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. মাহমুদুল ইসলাম জানান, করোনা প্রাদুর্ভাব মোবাকেলায় সরকারি নির্দেশে ঘরে থাকা কুমারখালী পৌরসভা এলাকা ও ১১টি ইউনিয়ন পরিষদ এলাকার ভিক্ষুক, আশ্রয়ণের বাসিন্দা, রিক্সা-ভ্যান চালক ও দিনমজুর সহ ৬ হাজার ৩০০ জন হতদরিদ্র মানুষের প্রাথমিকভাবে সরকারি সহায়তার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে পৌরসভা এলাকার ১৩৫০ জন (প্রতিটি ওয়ার্ডে ১৫০ জন) এবং ১১টি ইউনিয়নে ৪৯৫০ জন (প্রতিটি ইউনিয়নে ৪৫০ জন)। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের তালিকাভুক্ত প্রকৃত হতদরিদ্র মানুষের ঘরে ঘরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে সরকারি ত্রাণ সামগ্রী (চাল, ডাল, আলু, লবন, চিনি, তৈল, সাবান) পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। আর প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় সুষ্ঠু পরিবেশে সরকারি ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম তদারকির জন্য (ইউএনও’র প্রতিনিধি) ১০ জন সরকারি কর্মকর্তা ও স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এখনো পর্যন্ত কোথাও কোন প্রকার অনিয়মের অভিযোগ আসেনি। ইউএনও আরো বলেন, প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশ মেনে চলুন, সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করুন, বিনা প্রয়োজনে কেউ ঘরের বাইরে বের হবেন না। সরকারি নির্দেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরো খবর...