নিউ জিল্যান্ডে যুবাদের জয়ে মাহমুদুলের ১ রানের আক্ষেপ

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ওপেনার টমাস জোহরাবের সেঞ্চুরির পরও নিউ জিল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে বড় সংগ্রহ গড়তে দেননি বোলাররা। রান তাড়ায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে পথ দেখিয়েছেন টপ অর্ডারের দুই ব্যাটসম্যান মাহমুদুল হাসান ও তানজিদ হাসান। সফরকারীদের আরেকটি অনায়াস জয়ে মাত্র ১ রানের জন্য সেঞ্চুরি না পাওয়ার আক্ষেপ নিয়ে ফিরেছেন মাহমুদুল। বৃষ্টিতে আগের দিন খেলা সম্ভব হয়নি। তাই ম্যাচ গড়ায় রিজার্ভ ডেতে। বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় এক দিনের ম্যাচে বাংলাদেশ জিতেছে ৬ উইকেটে। ২৪৩ রানের লক্ষ্য ছুঁয়ে ফেলেছে ২১ বল বাকি থাকতে। পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। প্রথম এক দিনের ম্যাচেও জিতেছিল ৬ উইকেটে। টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো করে নিউ জিল্যান্ড। ওলি হোয়াইটের সঙ্গে ৫৫ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন জোহরাব। দ্রুত রান তোলার চেষ্টায় থাকা হোয়াইটকে ফিরিয়ে শুরুর জুটি ভাঙেন মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী। এক প্রান্ত আগলে রেখে দলকে টানেন জোহরাব। অন্য প্রান্তে ব্যাটসম্যানরা দুই অঙ্ক ছুঁয়েছেন। ছোট ছোট জুটি গড়ে উঠেছে। তবে স্বাগতিক ব্যাটসম্যানদের ডানা মেলতে দেননি বাংলাদেশের বোলাররা। ১৪২ বলে ৮ চারে ১১২ রান করে ফিরেন জোহরাব। আরেক ওপেনার হোয়াইট (৩০) ছাড়া আর কেউ যেতে পারেননি ৩০ পর্যন্ত। শুরুর জুটির পর কোনো জুটি স্পর্শ করতে পারেনি পঞ্চাশ।

৪১ রানে ২ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের সেরা বোলার মৃত্যুঞ্জয়। রান তাড়ায় শুরুতেই ফিরেন পারভেজ হোসেন। পেসার ডি হ্যানককের অফ স্টাম্পের বাইরের শর্ট বল টেনে মারতে গিয়ে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন বাঁহাতি এই ওপেনার। শুরু থেকেই বোলারদের ওপর চড়াও হন তানজিদ। একটু সময় নেন মাহমুদুল। দুই জনের জুটিতে এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। ৪৭ বলে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন তানজিদ। এরপরও খেলছিলেন একই ছন্দে। আদিত্য অশোকের ঝুলিয়ে দেওয়া বলে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে শেষ হয় তার আক্রমণাত্মক ইনিংস। ভাঙে ৯৬ রানের জুটি। ৬৩ বলে ৫ চার ও দুই ছক্কায় ৬৫ রান করেন তানজিদ। তৌহিদ হৃদয়ের সঙ্গে আরেকটি আরেকটি ভালো জুটি উপহার দেন মাহমুদুল। জেজে ম্যাকেঞ্জির অফ স্টাম্পের বেশ বাইরের স্লোয়ার বলে ক্যাচ দিয়ে হৃদয় ফিরলে ভাঙে ৭৭ রানের জুটি। দুই চারে হৃদয় করেন ৪০। দলকে জয়ের দুয়ারে নিয়ে ফিরেন মাহমুদুল। ম্যাকেঞ্জির সাদামাটা এক ডেলিভারি ক্রস ব্যাটে খেলে দেন ক্যাচ। ১২৫ বলে খেলা তার ৯৯ রানের ইনিংস গড়া ১০ চারে। শাহাদাত হোসেনকে নিয়ে বাকিটা সারেন শামিম হোসেন।  একই ভেন্যুতে আগামী রোববার হবে তৃতীয় ওয়ানডে। সংক্ষিপ্ত স্কোর: নিউ জিল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৫০ ওভারে ২৪২/৬ (হোয়াইট ৩০, জোহরাব ১১২, আনসেল ২০, ক্লার্ক ১৩, ম্যাকেঞ্জি ১৫, ভিশভাকা ১০, সানডে ২৯* প্রিঙ্গল ৫*; তানজিম ৯-০-৪৪-১, শরিফুল ১০-০-৬০-১, শামিম ১০-০-৩৫-১, মৃত্যুঞ্জয় ৭-০-৪১-২, রকিবুল ১০-০-৪০-১, হৃদয় ৪-০-১৯-০)। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৪৬.৩ ওভারে ২৪৩/৪ (তানজিদ ৬৫, পারভেজ ৬, মাহমুদুল ৯৯, হৃদয় ৪০, শামিম ১৫*, শাহাদাত ৪*; ম্যাকেঞ্জি ৭-০-৩৯-২, হ্যানকক ৮.৩-০-৪১-১, অশোক ১০-০-৫২-১)। ফল: বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল ৬ উইকেটে জয়ী।

আরো খবর...