নতুন কৃষি প্রযুক্তি কৃষকদের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে

মিরপুরে ৩ দিনের কৃষি মেলার উদ্বোধনকালে কামারুল আরেফিন

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষে তিনদিন ব্যাপি কৃষি ও প্রযুক্তি মেলার শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে “বৃহত্তর কুষ্টিয়া ও যশোর অঞ্চল কৃষি উন্নয়ন প্রকল্প” এর আওতায় ৩ দিনব্যাপী এ  মেলার উদ্বোধন করা হয়। এ উপলক্ষে উপজেলা চত্বর থেকে এক বর্নাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিংকন বিশ্বাসের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক কামারুল আরেফিন। এসময় তিনি বলেন- আমাদের দেশকে এক সময় বলা হতো তলাবিহীন ঝুঁড়ি। কিন্তু কৃষির উন্নয়নের মধ্যদিয়ে আমরা এখন পরিপূর্ণ ঝুঁড়িতে পরিনত হয়েছি। আমরা বর্তমানে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ন। বর্তমান সরকার কৃষির উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। কৃষি আধুনিকরণের লক্ষে আমরা এ মেলার আয়োজন করেছি। এর মধ্যদিয়ে কৃষকরা নতুন প্রযুক্তি ও নতুন উদ্ভাবিত ফসলে জাত সম্পর্কে জানতে পারছে। এ মেলার মাধ্যমে নতুন কৃষি প্রযুক্তি কৃষকের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। এতে কৃষকরা অধিক লাভবান হবে বলে আমরা মনে করি। মিরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন  পৌর  মেয়র হাজী এনামুল হক, উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান মর্জিনা খাতুন, কুষ্টিয়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপ-পরিচালক (শস্য) হাসিবুল ইসলাম, বৃহত্তর কুষ্টিয়া ও যশোর অঞ্চল কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের মনিটরিং কর্মকর্তা  সেলিম হোসেন, কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুত সমিতির মিরপুর জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার এনামুল হক, পোড়াদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আনোয়ারুজ্জামান বিশ্বাস মজনু, সদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রবিউল হক রবি, আমলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম মালিথা, চিথলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন পিস্তল, ধুবইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহাবুর রহমান মামুন, বহলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল রানা বিশ্বাস প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলার বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের প্রধানগণ, উপজেলার মডেল কৃষক/কৃষাণী, কৃষি অফিসের সকল উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাগণসহ সাধারন কৃষকগণ। পরে অতিথিবৃন্দ মেলার স্টল ঘুরে দেখেন। তিনদিন ব্যাপি এ মেলায় প্রায় অর্ধশত স্টলের মাধমে আধুনিক কৃষি সম্পর্কে জানানো হচ্ছে।

 

আরো খবর...