নতুন উচ্চতায় ব্রড

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ নিচু হয়ে যাওয়া ডেলিভারি ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটের ব্যাটকে ফাঁকি দিয়ে লাগল প্যাডে। আঙুল তুললেন আম্পায়ার। স্টুয়ার্ট ব্রড উঠে গেলেন নতুন উচ্চতায়। এই উইকেট নিয়েই ইংলিশ পেসার পূরণ করলেন ৫০০ টেস্ট উইকেট। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওল্ড ট্র্যাফোর্ড টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে ব্রডের উইকেট সংখ্যা ছিল ৪৯৯। পরের দিনটি ভেসে যায় বৃষ্টিতে। মঙ্গলবার শেষ দিন সকালেও বৃষ্টি বাগড়া দিয়েছে খানিকটা। এরপর আর বেশি দীর্ঘায়িত হয়নি অপেক্ষা। বৃষ্টি বিরতির পর নিজের ষষ্ঠ ডেলিভারিতেই ৩৪ বছর বয়সী পেসার পৌঁছে যান কাক্সিক্ষত ঠিকানায়। ৫০০ উইকেটের অভিজাত ক্লাবে ব্রডের আগে ইংল্যান্ডের একমাত্র প্রতিনিধি ছিলেন তার দীর্ঘদিনের বোলিং জুটির সঙ্গী জিমি অ্যান্ডারসন। মাইলফলকে ছোঁয়ার মুহূর্তটিও দুজনের মিলে গেছে একটি জায়গায়। ব্রডের মতো অ্যান্ডারসনের ৫০০তম শিকারও ছিলেন ব্র্যাথওয়েট। সব মিলিয়ে ৫০০ উইকেটের স্বাদ পাওয়া বোলার এখন টেস্ট ইতিহাসে ৭ জন। ব্রডকে দিয়ে তালিকায় পেসারদের পাল্লা ভারি হলো, ৪ জন। উইকেট শিকারির তালিকায় শীর্ষ তিনে অবশ্য আছেন ৩ স্পিনার। ম্যাচের হিসেবে এই মাইলফলকে পৌঁছতে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ লাগল ব্রডেরই, ১৪০ টেস্ট। দ্রুততম ৫০০ উইকেটের রেকর্ড শ্রীলঙ্কান স্পিনার মুত্তিয়া মুরালিধরনের, ৮৭ টেস্টে। পেসারদের মধ্যে দ্রুততম অস্ট্রেলিয়ার গ্লেন ম্যাকগ্রা, ১১০ টেস্টে। অন্য দুই পেসার অ্যান্ডারসন ও কোর্টনি ওয়ালশের লেগেছিল সমান ১২৯ টেস্ট। ২০০৭ সালের ডিসেম্বরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কলম্বোতে টেস্ট ক্যাপ পেয়েছিলেন ব্রড। অভিষেকে একমাত্র ইনিংসে ৯৫ রান খরচায় তার প্রাপ্তি ছিল লোয়ার অর্ডারে চামিন্দা ভাসের উইকেট। সময়ের পরিক্রমায় তিনি হয়ে ওঠেন ইংল্যান্ডের বোলিং আক্রমণের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। চলতি টেস্টের আগে ক্যারিয়ারে ১৭ বার পেয়েছেন ৫ উইকেট, ম্যাচে ১০ উইকেট দুইবার। ৫০০তম শিকার দিয়ে এই টেস্টে হয়ে গেছে তার ৯ উইকেট।

আরো খবর...