দৌলতপুরে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে সংঘর্ষ

মরিচা ইউপি চেয়ারম্যানসহ আহত-১০

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষে মরিচা ইউপি চেয়ারম্যানসহ অন্তত ১০জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ৩জন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার মরিচা ইউনিয়নের বালিরদিয়াড় বাজারে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী আব্দুর রাজ্জাকের কর্মী সমর্থকরা বালিরদিয়াড় বাজারে ভোট চাইতে গেলে মরিচা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ আলমগীরের লোকজনের সাথে তাদের বাকবিতন্ডা বাঁধে। বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে চেয়ারম্যান শাহ আলমগীরের লোকজনের আব্দুর রাজ্জাক প্যানেলের সমর্থক ছাব্বির, বাবলু ও শরিফুলকে বেধড়ক মারপিট করে গুরুতর আহত করে। পরে আব্দুর রাজ্জাক পক্ষের লোকজন সংঘবদ্ধ হয়ে মরিচা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ আলমগীরের অফিসে হামলা চালায়। এসময় উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষে বাঁধে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে একে অপরের ওপর হামলা ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। সংঘর্ষে মরিচা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলমগীর, রশিদ, রাব্বি, কামাল, সামিউল, ফিরোজ, ছাব্বির, বাবলু ও শরিফুলসহ ১০জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে রাজ্জাক পক্ষের ৩জনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাঁকীরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছে। সংঘর্ষের বিষয়ে মরিচা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলমগীর বলেন, রাজ্জা মিস্ত্রির লোকজন আমার অফিসে অতর্কিত হামলা চালিয়ে আমাকেসহ আমার লোকজনকে বেধড়ক মারপিট করে আহত করেছে। এসময় হামলাকারীরা আমার মোটরসাইকেলটিও ভাংচুর করে। সংঘর্ষের বিষয়ে দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে মঙ্গলবার রাতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও উত্তেজনা দেখা দিয়ে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করা হয়েছে। উলে¬খ্য, গতকাল বুধবার মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

আরো খবর...