দেশের এমন কোনো এলাকা নেই যেখানে উন্নয়ন হয়নি – নাসিম

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু হত্যা ও জেল হত্যায় জড়িতদের বিচার করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছেন। তিনি দেশ থেকে জঙ্গি দমন করেছেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আলোকিত বাংলাদেশ হয়েছে। তার সরকারের ধারাবাহিক উন্নয়ন এবং সাফল্যের কারণে দেশ দ্রুত এগিয়ে চলছে। দেশের এমন কোনো এলাকা নেই যেখানে কোনো উন্নয়ন হয়নি। গ্রাম থেকে রাজধানী ঢাকাতেও সে উন্নয়নের ছোঁয়া চোখে পড়ার মতো। গতকাল শুক্রবার পাবনায় সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের আব্দুস সাত্তার মিলনায়তনে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত তৃণমূল প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে নাসিম বলেন, যতই মিটিং-মিছিল করেন তাতে লাভ হবে না। জনগণের কাছে যেতে হবে। জনগণের আস্থা অর্জন করতে হবে। বিএনপি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিএনপির এখন মাজা ভেঙে গেছে। তারা আর উঠে দাঁড়াতে পারবে না। তাদের ব্যর্থতায় ঢাকা সিটি নির্বাচনে পরাজিত হয়ে এখন তারা নানাভাবে অপপ্রচার ও সমালোচনা করছে। সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদ। তিনি বলেন, সব কিছুতে ভুল ধরা বিএনপির বদ অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। বিভিন্ন সরকারি দফতর ও সংস্থার ব্যাংকে থাকা উদ্বৃত্ত অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা দেয়ার বিষয়ে সংসদে বিল পাস নিঃসন্দেহে ভালো উদ্যোগ। কিন্তু এ বিষয়ে বিএনপির মহাসচিব যে কথা বলেছেন তার কোনো ভিত্তি নেই। সব কাজে ভুল ধরা যেন তাদের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। আশা করি তারা এই বদ অভ্যাস ত্যাগ করবেন। ঢাকা সিটি নির্বাচনে ভোটারের উপস্থিতি কম হওয়ার বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সিটি নির্বাচনে ইভিএম নিয়ে বিএনপি বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে।, সেই সঙ্গে নির্বাচনকে আন্দোলনের অংশ বলায় জনগণের মাঝে ভীতি ও আশঙ্কা ছিল। যার কারণে ভোটার উপস্থিতি ছিল কম। আসলে বিএনপি অংকে ভুল করেছে। জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লালের সভাপতিত্বে সভায় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতা নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও পাবনা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, পাবনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবির, পাবনা-৩ আসনের সংসদ সদস্য মো. মকবুল হোসেন, পাবনা-৫ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলিসহ জেলা নেতৃবৃন্দ বক্তব্য দেন। এ সময় সাবেক জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলার প্রবীণ নেতা এম সাইদুল হক চুন্নু, সাবেক সংসদ সদস্য খন্দকার আজিজুল হক আরজু, সাবেক সংসদ সদস্য পাঞ্জাব বিশ্বাস, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও চাটমোহর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ মাস্টার, বাবু চন্দন কুমার চক্রবর্তী, বেড়া পৌর মেয়র আলহাজ আব্দুল বাতেন, বেড়া উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট তসলিম হাসান সুমন, সাবেক পিপি অ্যাডভোকেট বেলায়েত আলী বিল্লু, যুগ্ম সম্পাদক আবু ইসহাক শামিম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ মোশারোফ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক কামিল হোসেন, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আলী মর্তজা বিশ্বাস সনি, যুগ্ম আহ্বায়ক সিবলী সাদিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে তথ্যমন্ত্রী পাবনা সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের সঙ্গে নানা বিষয়ে কথা বলেন। এ সময় তিনি বলেন, মূলধারার নিউজপ্রিন্ট ও টিভি চ্যানেলগুলোর উন্নয়নসহ মান বৃদ্ধিতেই ইউটিউবসহ অনলাইন পোর্টালগুলোকে করের আওতায় আনা হবে। ইতোমেধ্য বাইরে যেসব বিজ্ঞাপন যেত তা বন্ধ করা হয়েছে। এ সময় বেসরকারি টেলিভিশন মালিকদের সংগঠন অ্যাটকোর সভাপতি ও স্কয়ার গ্রুপের পরিচালক অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু, পাবনার পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম, পাবনা প্রেস ক্লাবের সভাপতি অধ্যাপক শিবজিত নাগ, সিনিয়র সহসভাপতি আখতারুজ্জামান আখতার, সাধারণ সম্পাদক আঁখিনুর ইসলাম রেমন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আরো খবর...