দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ না করলে ব্যবস্থা – জিএম কাদের

ঢাকা অফিস ॥ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেছেন, ঢাকা-১৮ সংসদীয় আসনে উপ-নির্বাচনে জাতীয় পার্টি শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত মাঠে থাকবে। একটি গণতান্ত্রিক দল হিসেবে জাতীয় পার্টি প্রতিটি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। যারা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর সাথে কাজ করবে না, তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। গতকাল শনিবার জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে ঢাকা-১৭ আসনের সাতটি থানার নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে জিএম কাদের এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ঢাকা-১৭ আসন ছিল আমাদের। এই আসনে পল্লীবন্ধু প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বারবার নির্বাচিত হয়েছেন। আসনটি আমরা মহাজোটকে ছেড়ে দিয়েছি। আমরা আশা করছি, ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টির প্রার্থী নির্বাচন করতে পারবেন। এ ব্যাপারে মহাজোটের সাথে আলোচনা হবে। জিএম কাদের আরও বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সারাজীবন দেশ ও মানুষের স্বার্থে সংগ্রাম করেছেন। বঙ্গবন্ধুর অবদান কোনোভাবেই অস্বীকার করা যাবে না। পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সংসদেই বলেছেন, জাতীয় পার্টি বঙ্গবন্ধুকে জাতির জনকের মর্যাদা দিতে চেয়েছিল। কিন্তু বিশেষ কারণে সেটা করতে পারেনি। তবে সংসদে জাতির জনক মর্যাদা দেয়ার বিষয়ে জাতীয় পার্টি ভোট দিয়েছিল। জাতির জনক কোনো দলের নন, জাতির জনক সারাদেশের সকল দলের। তাই ১৫ আগস্ট জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকেও কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে। সংসদের এ বিরোধী দলের চেয়ারম্যান বলেন, আমাদের সংসদীয় সরকার ব্যবস্থায় সরকারপ্রধান না চাইলে কিছুই হবে না। তাই রাজপথে হরতাল ও জ¦ালাও-পোড়াও এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে কোনো দাবি আদায় করা সম্ভব নয়। জাতীয় পার্টি বিরোধী দল হিসেবে ইতিবাচক রাজনীতি করছে দাবি করে তিনি বলেন, সংসদ ও রাজপথে আমরা যুক্তি দিয়ে কথা বলছি। আমরা দেশ ও জনগণের পক্ষে আমাদের বক্তব্য তুলে ধরছি। সাধারণ মানুষ জাতীয় পার্টির রাজনীতি গ্রহণ করেছে, তাই জাতীয় পার্টির সমর্থন বেড়েই চলেছে। দেশের মানুষ বিশ্বাস করে, জাতীয় পার্টিকে দায়িত্ব দিলে দেশ ও জনগণের ভাগ্যোন্নয়নে জাতীয় পার্টি সফল হবে। জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু বলেন, করোনাভাইরাস ও বন্যার কারণে দেশে ভয়াবহ অবস্থা বিরাজ করছে। জাতীয় পার্টি ছাড়া কোনো রাজনৈতিক দলই সাধারণ মানুষের পাশে নেই। রাজনৈতিক শূন্যতায় জাতীয় পার্টি জনগণের দল হিসেবে আবারও প্রমাণ রেখেছে। রাজনৈতিক পটপরির্বতনে সরকার আসে সরকার যায়। কিন্তু সাধারণ মানুষের ভাগ্যের কোনো পরিবর্তন হয় না। তাই জাতীয় পার্টিকে আরও শক্তিশালী করে গণমানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করতে হবে। দেশের মানুষ তৃতীয় শক্তির দিকে উন্মুখ হয়ে চেয়ে আছে উল্লেখ করে জাতীয় পার্টির মহাসচিব জনগণের প্রত্যাশা পূরণ করতে দলকে শক্তিশালী করার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।

 

আরো খবর...