দর্শককে কটু কথা বলে বিপদে স্টোকস

ক্রীড়া প্রতিবেদক \ একসময় বিতর্ক ছিল তার নিত্য সঙ্গী। তবে সেই দিনগুলিকে পেছনে ফেলেছেন বলেই মনে হচ্ছিল। গত বছর দুয়েকে ২২ গজে অসাধারণ পারফরম্যান্স দিয়েই আলোড়ন তুলেছেন বারবার। কিন্তু আবার বিতর্কে জড়ালেন বেন স্টোকস। দর্শককে কটু কথা বলায় শা¯িÍর সম্মুখীন হতে পারেন আইসিসির বর্তমান বর্ষসেরা ক্রিকেটার। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জোহানেসবার্গ টেস্টের প্রথম দিনে শুক্রবার এই কান্ড ঘটান স্টোকস। মাত্র ২ রানে আউট হয়ে ফেরার পথে ড্রেসিং রুমের সিঁড়িতে পা রাখার ঠিক আগে ডান পাশে গ্যালারিতে একজনের দিকে তাকিয়ে ইংলিশ অলরাউন্ডার বলেন, “এসো, মাঠের বাইরে এসে আমাকে এটা বলো…।” এটুকুর পর অশ্রাব্য ভাষায় আরেকটু কথা বলে উঠে যান সিঁড়ি দিয়ে। টিভির সরাসরি স¤প্রচারে সেটা ধরা পড়েনি। তবে পরে ব্রডকাস্টাররা সেই দৃশ্য বেশ কয়েকবার দেখিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তা ভাইরাল হয়ে যায় দ্রুতই। ওই দর্শক স্টোকসকে কি বলেছিলেন, টিভি ক্যামেরায় তা ধরা পড়েনি। তবে ইএসপিএনক্রিকইনফো জানিয়েছে, মধ্য বয়সী ওই দর্শক সম্ভবত বলেছিলেন, স্টোকসকে দেখতে গায়ক এড শিরানের মতো লাগে। মাঠে অশি¬ল কোনো কথার প্রমাণ পেলে সেটিকে আইসিসি আচরণবিধির লেভেল এক ভাঙার অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়। এটির শা¯িÍ একটি ডিমেরিট পয়েন্ট। স্টোকসের নামের পাশে এখন কোনো ডিমেরিট পয়েন্ট জমা নেই। তাই এই শা¯িÍ পেলে বলা যায় আপাতত রক্ষাই পাবেন স্টোকস। কিন্তু তার কথাকে যদি আঘাতের হুমকি হিসেবে গণ্য করা হয়, তাহলে আচরণবিধির লেভেল তিন ভাঙার অভিযোগ আনা হবে তার বিরুদ্ধে। সেটি প্রমাণিত হলে ৫ থেকে ৬টি ডিমেরিট পয়েন্ট পাবেন স্টোকস, মানে নিশ্চিত নিষেধাজ্ঞা। আর যদি তার কথায় খেলাটির জন্য দুর্নাম বয়ে আনার কিছু পান ম্যাচ রেফারি, তাহলে আচরণবিধির লেভেল এক থেকে চার পর্যন্ত যে কোনো ধারা ভঙ্গের অভিযোগ আনা হতে পারে। লেভেল চার মানে সবচেয়ে গুরুতর অপরাধ। ম্যাচ রেফারি অবশ্য অভিযোগ আনার সময় কিছু কিছু ব্যাপার মাথায় রাখবেন। ওই দর্শকের মন্তব্য স্টোকসকে কতটা উসকে দেওয়ার মতো ছিল, এটা দেখা হবে। স্টোকসের বাবা অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন, তাই তার মানসিক অবস্থাও বিবেচনায় নেওয়া হবে।

আরো খবর...