তিন মাসে দু’বার ফসল তছরুপ করলো দুর্বৃত্তরা

খোকসায় ফসলের সাথে শত্রতা

খোকসা প্রতিনিধি ॥  তিন মাসের ব্যবধানে এক প্রতিবন্ধি কৃষকের ২৫ কাঠা জমি থেকে দুর্বৃত্তরা দুই দফায় ফসল তছরুপ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।  জানা গেছে, রবিবার দিনগত রাতে উপজেলা সদরের পাতিলডাঙ্গী গ্রামের প্রতিবন্ধি কৃষক অতুল চন্দ্র মোদকের ২৫ কাঠা (শোয়া এক বিঘা) জমির লালিমের চারা তুলে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার সকালে শ্রমিকরা জমিতে পরিচর্যা করতে গিয়ে জমি থেকে লালিমের চারা তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনাটি টের পায়। পরে তারা কৃষককে খবর দেয়। তিন মাস আগে এক রাতে কৃষকের একই জমির প্রায় ৩ হাজার ৫শ উঠতি বাঁধা কপিতে অতিমাত্রায় রাসায়নিক ওষুধ ¯েপ্র করে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা। কয়েক দিনের মধ্যে গোটা জমিতে আবাদ করা কপির গাছ পঁচন রোগ ধরে। ফলে ক্ষেতের গোটা কপি পচে নষ্ট হয়ে যায়। দুই দফায় ফসল তছরুপের ফলে কৃষক প্রায় ৩ লাখ টাকা ক্ষতির শিকার হয়েছেন।  কৃষক অতুল চন্দ্র মোদক জানান, গত শীতের এক রাতে দুর্বৃত্তরা তার জমিতে অতিমাত্রায় কীটনাশক ওষুধ স্প্রে করে রেখে যায়। কয়েকদিন পর তার ক্ষেতের সমস্ত কপির গাছ মরে যায়। দুর্বৃত্তরা সে যাত্রায় তার প্রায় দেড় লাখ টাকার বাঁধা কপি নষ্ট করে দেয়। এবার আবার একটু আগুর (আগে) একই জমিতে লালিমের বীজ বপণ করে কৃষক। ইতোমধ্যে গোটা জমিতে কয়েক হাজার চারা গজিয়েছিল। আগামী রমজানের সময় এ জমি থেকে বাজারে লালিম সরবরাহ করার যেত। এ সময় বাজারে লালিমের চাহিদা থাকে। এ মৌসুমে জমিতে দেড় থেকে দুই লাখ টাকার ফসল বিক্রির আশা করছিলেন কৃষক। সে নিজের ক্ষতি মেনে নিয়েছেন। দুই বার ফসল তছরুপের ঘটনার পরেও অভিমানি এই কৃষক কারো কাছে অভিযোগ করেননি।

আরো খবর...