ডাঃ তোফাজ্জুল হেলথ্ সেন্টার, ডাঃ লিজা-ডাঃ রতন ম্যাটস্ ও ডাঃ লিজা নার্সিং’র যৌথ উদ্যোগ ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতনতা মূলক কর্মসূচী

গতকাল ডাঃ তোফাজ্জুল হেলথ্ সেন্টার, ডাঃ লিজা-ডাঃ রতন ম্যাটস্ ও ডাঃ লিজা নার্সিং ইনস্টিটিউটের যৌথ উদ্যোগে কুষ্টিয়া এন এস রোড সংলগ্ন প্রতিষ্ঠানে ও এর আশেপাশে ডেঙ্গু  প্রতিরোধে সচেতনতা মুলক কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়েছে। উক্ত কর্মসূচীতে ডাঃ তোফাজ্জুল হেলথ সেন্টারের স্বত্ত্বাধীকারী ডাঃ এ এফ এম আমিনুল হক রতন, ডাঃ লিজা-ডাঃ রতন ম্যাটস্ এর চেয়ারম্যান ডাঃ আসমা জাহান লিজা সহ উক্ত প্রতিষ্ঠান সমুুুহের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রী ছাড়াও এলাকার বিভিন্ন গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। পরিচ্ছন্নতা কর্মসুচী সকাল ১০ টায় প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব ভবন ও এর আশেপাশের এলাকা পরিস্কার করার মাধ্যমে শুর হয় এবং দুপর ১ টা ৩০ মিনিটে সচেতনতা মুলক র‌্যালীর মধ্য দিয়ে শেষ হয়। কর্মসূচীতে উপস্থিত বক্তারা বলেন ডেঙ্গু বর্তমানে সবচেয়ে ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগ হলেও নিজেরা একটু সচেতন হওয়ার মাধ্যমে খুব সহজেই এই দুর্যোগ মোকাবেলা করা সম্ভব। ডেঙ্গু একটি ভাইরাস জ্বর আর এই ভাইরাস বহন করে এডিস নামক একটি মশা। এই এডিস মশা আমাদের আশেপাশে জমে থাকা পরিস্কার পানিতে বংশ বিস্তার করে। এর জন্য আমাদের আশেপাশের এলাকায় জমে থাকা জমে থাকা পানির স্থান যেমন ডাবের খোলা, মাটির পাত্র, গাড়ির পরিত্যাক্ত টায়ার, এসি অথবা ফ্রীজের পানির পাত্র, পশু পাখির খাবার পানির পাত্র ইত্যাদি প্রতিনিয়ত পরিস্কার রাখতে হবে। অন্তত প্রতি তিন দিন অন্তর অন্তর জমে থাকা পানি ফেলে দিতে হবে। সেই সাথে ময়লা আবর্জনা নির্দিষ্ট স্থানে ফেলতে হবে। কেবলমাত্র পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকায় ডেঙ্গু প্রতিরোধের একমাত্র হাতিয়ার। সুতরাং আমরা সকলে সচেতন হব এবং ডেঙ্গু মুক্ত সুন্দর পরিবেশে বসবাস করবো। ডাঃ এ এফ এম আমিনুল হক রতন বলেন যেহেতু এডিস মশা দিনের বেলায় কামড়ায় সুতরাং দিনের বেলায় বিশ্রাম নেওয়ার সময় অবশ্যই মশারি ব্যবহার করতে হবে। আর জ্বর দেখা দিলে অযথা আতঙ্কিত না হয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে রক্তের পরীক্ষা করতে হবে। বর্তমানে সরকার নির্ধারিত মূল্যে সরকারি/বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সমুহে  ডেঙ্গুর পরিক্ষা হচ্ছে। সুতরাং সঠিক সময়ে সঠিক চিকিৎসা করালে ডেঙ্গু রোগী সম্পুর্ন রুপে সুস্থ হয়ে যাবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আরো খবর...