জ্বলছে আসাম, প্রতিবাদে  পাপনের হৃদয়স্পর্শী টুইট

বিনোদন বাজার ॥ ভারতের পার্লামেন্টে পাস হওয়া নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের (সিএবি) প্রতিবাদে জ্বলছে আসাম।বৃহস্পতিবার রাজ্যটির রাজধানী গোহাটিতে কারফিউ ভেঙে হাজার হাজার জনতা রাস্তায় নামলে পুলিশের গুলিতে অন্তত পাঁচজন নিহত হয়েছেন।নিজভূমির এমন ভয়াবহ পরিস্থিতি মেনে নিতে পারছেন না বলিউডের জনপ্রিয় গায়ক পাপন। আসামের দুদর্শায় উৎকণ্ঠায় ভুগছেন তিনি।যে কারণে শুক্রবার দিল্লির ইমপারফেক্টো শোরের শোতেই যাননি পাপন। আসামের কঠিন পরিস্থিতির কারণেই এই অনুষ্ঠান বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলিউডের এই নামি গায়ক।তার মতে, আসাম জ্বলছে, জনগণ কাঁদছে। নিজভূমির এমন উত্তাল পরিস্থিতিতে খোশমেজাজে গান গাওয়ার জন্য ঠোঁটই নড়বে না তার।উল্লেখ্য, বলিউডের এই জনপ্রিয় গায়ককে পাপন নামে চিনলেও অসমীয় এই শিল্পীর নাম অঙ্গরাজ মাহান্ত। ‘জিয়ে কিঁউ’, ‘মোহ মোহ কে ধাগে’, ‘হামনাবা’, ‘বুলেয়া’ এবং আরও বেশ কিছু জনপ্রিয় গান গেয়েছেন এই শিল্পী। কিছু বাংলা গানও গেয়েছেন ইতিমধ্যে।

এদিকে দিল্লির সেই শো বয়কট করায় ইতিমধ্যে দিল্লিবাসীর কাছে ক্ষমাও চেয়েছেন পাপন।কেন শোতে অংশ নেননি তা জানিয়ে এক হৃদয়স্পর্শী টুইটও করেছেন পাপন।টুইটে তিনি লিখেছেন,‘প্রিয় দিল্লি, আমি খুবই দুঃখিত যে, আগামীকালের কনসার্টটি আমি বাতিল করছি। কারফিউয়ের কারণে আমার রাজ্য আসাম কাঁদছে, জ্বলছে। এই অবস্থায় আমি মানুষকে বিনোদন দেয়ার মতো অবস্থাতে নেই।’জন্মভূমি জ্বলছে তবুও সেই শোয়ের টিকিট কিনে ফেলাদের আশ্বস্ত করেছেন পাপন।টুইটে পাপন আরো যোগ করেছেন, ‘আমি জানি হঠাৎই শো বয়কট করার বিষয়টি খুবই বেমানান। কারণ ইতিমধ্যেই অনেকে টিকিট কেটে ফেলেছেন। আশা করি শোয়ের আয়োজকরা সেই বিষয়টা খেয়াল রাখবেন। আমি আপনাদের আশ্বস্ত করছি, শিগগিরই ওখানেই অনুষ্ঠান করব। আপনারা আমার অসুবিধাটা বোধহয় অনুধাবন করতে পারছেন।’টুইটে জন্মভূমি ও অসমীয়দের প্রতি তার যে কত টান তাও দৃশ্যমান হয়েছে।টুইটবার্তায় পাপন লিখেছেন, ‘আসাম যেভাবে জ্বলছে, সেটা দেখা সত্যিই খুব বেদনাদায়ক। মানবতা আক্রান্ত। বছরের পর বছর ধরে আসামে এই অনুপ্রবেশ ঘটেছে। আসামের বহুত্ববাদ কীভাবে রাজ্যের সংস্কৃতির সঙ্গে আষ্ঠেপৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে, সেদিকটাও দেখতে হবে।’প্রসঙ্গত বুধবার সন্ধ্যায় ভারতীয় পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় সিএবি পাস হওয়ার পরপরই আসামের বিভিন্ন অংশে বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভকারীরা পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পুরো রাজ্যকে অস্থির করে তোলে।প্রতিবাদ চলতে থাকায় আসাম ও প্রতিবেশী ত্রিপুরায় সব ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখা হয়। গোহাটি ও ডিবরুগড়গামী বহু ফ্লাইট বাতিল করা হয়। হাজার হাজার লোক রাস্তায় নেমে প্রতিবাদে অংশ নিতে থাকায় একপর্যায়ে আসামের চারটি এলাকায় সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়।গোহাটিতে প্রতিটিতে ৭০ জন করে সেনাবাহিনীর দুটি দল মোতায়েন করা হয়। এর পাশাপাশি তিনসুকিয়া, ডিবরুগড় ও জোরহাট জেলায় সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।আসাম-ত্রিপুরাতে সেনা নামিয়েও পরিস্থিতি এখনো নিয়ন্ত্রণে আনতে হিমশিম খাচ্ছে প্রশাসন। জনতার রোষের মুখে শাসক দল বিজেপির নেতা-মন্ত্রীরা। আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনওয়াল, গুয়াহাটির বিজেপি সাংসদ কুইন ওঝার পরে এবার নিশানায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামেশ্বর তেলি। আর ঠিক এমনই সময়ে বলিউডের বিখ্যাত এই অসমীয় গায়ক নিজের কনসার্ট বাতিল করে প্রতিবাদে শামিল হলে

আরো খবর...