জীবনের শুরু দোলনা থেকে কবর পর্যন্ত বৃক্ষের গুরুত্ব অপরিসীম

ইবিতে রবীন্দ্র-নজরুল কলা অনুষদে বৃক্ষ উৎসব অনুষ্ঠানে প্রফেসর ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী

ইসলামী বিশ্ববদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী) বলেন, জীবনের শুরু দোলনা হতে কবর পর্যন্ত বৃক্ষের গুরুত্ব অপরিসীম। বর্তমান বিশ্বে যথেচ্ছাচার বৃক্ষ নিধনের জন্য পরিবেশের ভারসাম্য বিনষ্ঠ হচ্ছে। এতে করে পৃথিবীর প্রতিটি দেশেই অনাবৃষ্টি, অতিবৃষ্টি, বন্যা, জলোচ্ছাস লেগেই আছে। তাই খোলা ও পরিত্যাক্ত জায়গায় বেশি বেশি বিভিন্ন প্রজাতির গাছ লাগাতে হবে। গতকাল সোমবার রবীন্দ্র-নজরুল কলা অনুষদের হলরুমে  রবীন্দ্র-নজরুল কলা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ সরওয়ার মুর্শেদ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। তিনি বলেন, মৃত বৃক্ষ নিহত নয় বরং গত তিন বছরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ক্যাম্পাসের ভিতরের মরা গাছ দিয়ে যে পরিমান টেবিল-চেয়ার ও অন্যান্য ফার্নিচার বানিয়েছেন গত ৩০ বছরেও কেউ এই কাজটি করে নাই। তিনি আরো বলেন, ক্যাম্পাসের ছয় বিঘার পরিত্যাক্ত জায়গায় শত শত গাছ লাগিয়ে দৃষ্টিনন্দন বোটানিক্যাল গার্ডেন বানানো হয়েছে। তিনি উপস্থিত সকলকে যার যার আঙ্গিনায় একটি করে গাছ লাগানোর জন্য উদাত্ত আহবান জানান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, পৃথিবীর এমন কোন জায়গা নেই যেখানে গাছের ব্যবহার হয় না। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের যে গাছগুলো আর কাজে লাগছে না সেগুলো দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় সাজানোর কাজ শুরু করেছে প্রশাসন। এ ছাড়া ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় প্রতিদিনই রোপন করা হচ্ছে নতুন নতুন গাছের চারা। অপর বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা বলেন, আজকের এ অনুষ্ঠানটি একটি ব্যতিক্রমী, সৃজনশীল ও তাৎপর্যপূর্ন আয়োজন। যা আমাকে মুগ্ধ করেছে। আজকের এই আয়োজন প্রমান করে রবীন্দ্র-নজরুল নামকরণটি স্বার্থক। তিনি বলেন, বর্তমান প্রশাসন বিশ্ববিদ্যালয়ের একশত পচাত্তর একরকে সুজলা, সুফলা, শস্য শ্যামলায় একটি নৈসর্গিক ক্যাম্পাস তৈরি করতে বধ্য পরিকর। ক্ষছাড় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রফেসর ড. মোঃ তোজাম্মেল হক, প্রফেসর ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন, প্রফেসর ড. মোঃ মিজানুর রহমান। এছাড়া বৃক্ষ নিয়ে স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন প্রফেসর ড. শেখ মহাঃ রেজাউল করীম ও বাংলা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মোহাঃ সাইদুর রহমান। “বৃক্ষ দেয় অক্সিজেন, বৃক্ষ দেয় আয়ু, তৃণলতা খাদ্য দেয় জীবন পরমায়ু” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে দিনব্যাপী বৃক্ষ উৎসব অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পরিবহন প্রশাসক প্রফেসর ড. মোঃ রেজওয়ানুল ইসলাম, ইংরেজি বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. সালমা সুলতানা, প্রফেসর. ড. মোঃ মঞ্জুরুল রহমান ও প্রফেসর ড. মোঃ রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।। পরে রবীন্দ্র-নজরুল কলা অনুষদের সামনে একটি পলাশ গাছের চারা রোপন করা হয়। অনুষ্ঠানটি  সঞ্চালনা করেন প্রফেসর ড. মোঃ রশিদুজ্জামান। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

 

আরো খবর...