চুরি যাওয়া ল্যাপটপসহ গ্রেপ্তার ইসির হালনাগাদ কর্মী রিমান্ডে

ঢাকা অফিস ॥ চট্টগ্রামে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) জালিয়াতির ঘটনায় গ্রেপ্তার নির্বাচন কমিশনের অস্থায়ী কর্মী মোস্তফা ফারুককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের হেফাজত মঞ্জুর করেছে আদালত। গতকাল শুক্রবার বিকেলে চট্টগ্রামের মহানগর হাকিম আবু ছালেহ মোহাম্মদ নোমান এ আদেশ দেন বলে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) কাজী শাহাবুদ্দিন আহমদ জানিয়েছেন। তিনি বলেন, তদন্ত সংস্থার পক্ষ থেকে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে পাঁচ দিনের রিমান্ড দিয়েছে আদালত। ভোটার হালনাগাদের কাজে অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ পাওয়া নির্বাচন কমিশনের টেকনিক্যাল সাপোর্ট স্টাফ মোস্তফা ফারুককে আগের দিন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের কার্যালয়ে ডেকে নেওয়া হয়। তিনি জালিয়াতির মাধ্যমে এনআইডি তৈরির ঘটনায় জড়িত বলে শুক্রবার সকালে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়। ৩৬ বছর বয়সী মোস্তফা ফেনী সদরের লস্করহাট দমদমা এলাকার ইলিয়াছের ছেলে। তিনি নগরীর হামজারবাগের মোমিনবাগ আবাসিক এলাকায় ভাড়া থাকেন। তার কাছ থেকে দুটি পেনড্রাইভ ও দুটি ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়েছে, যার মধ্যে একটি ল্যাপটপ নির্বাচন কমিশনের চুরি যাওয়া ল্যাপটপ। মোস্তফার পেনড্রাইভ দুটিতে রোহিঙ্গাদের তথ্য এবং নির্বাচন কমিশনের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আছে বলে জানিয়েছেন কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের কর্মকর্তারা। এছাড়াও তার কাছ থেকে নির্বাচন কমিশনের একটি মডেম, ৫০টি আইডি কার্ড লেমিনেটিং করার কাগজ, তিনটি সিগনেচার প্যাড ও মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে। মোস্তফা বোয়ালখালী উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ের অধীনে হালনাগাদ কার্যক্রমে টেকনিক্যাল সাপোর্ট স্টাফ হিসেবে কাজ করছিলেন। আউটসোসিংয়ের ভিত্তিতে তাকে নিয়োগ দেওয়া হয়। নির্বাচন কমিশনের চুরি যাওয়া ল্যাপটপ কীভাবে মোস্তফা ফারুকের কাছে গেল তা তদন্ত করছে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট।

আরো খবর...