ঘুর্ণিঝড় আম্পান ও করোনা মোকাবেলায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী

ঘুর্ণিঝড় আম্পান পরবর্তী দুর্যোগ ও করোনা মোকাবেলায়  বেসামরিক প্রশাসনকে সর্বাত্মক সহায়তা প্রদান করছে বাংলাদেশ  সেনাবাহিনী। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ তাদের আওতাধীন ১০টি  জেলা পরিদর্শন করে ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষয়ক্ষতি পরিমাণ নিরুপন করেন। বিশেষ করে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত সাতক্ষীরা, যশোর এবং খুলনাঞ্চলের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে ইতিমধ্যে  সেনাবাহিনীর ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী উদ্ধার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ঘূর্ণিঝড় আম্পান কবলিত এলাকার অসহায় ও দুস্থ মানুষদের মাঝে খাদ্য সহায়তা ও চিকিৎসা সেবা প্রদানের পাশাপাশি তারা সেখানে রাস্তাঘাট ও ঘরবাড়ির উপর উপড়ে পড়া গাছপালা সরিয়ে রাস্তাঘাট চলাচল উপযোগী এবং ঘরবাড়ি মেরামতের কাজে সহায়তা প্রদান করছে। এছাড়াও আম্পানের তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্থ মসজিদ, বেড়িবাঁধ এবং মাছের খামার মেরামত ও বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। অন্যদিকে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় নিয়মিত টহল ও বিভিন্ন জনসচেতনতা সৃষ্টিমূলক কার্যক্রমের পাশাপাশি ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে মুজিব বর্ষে এতিম ও দুস্থ শিশুদের জন্য সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে ঈদ উপহার তুলে দিচ্ছে যশোর  সেনানিবাসের সদস্যরা। ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের দায়িত্বশীল একটি সূত্র থেকে জানা যায় যে, “চলমান করোনা পরিস্থিতি এবং সাইক্লোন আম্পান এর ধ্বংসযজ্ঞ মোকাবেলায় বাংলাদেশ  সেনাবাহিনী সচ্ছতার সাথে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে এবং ভবিষ্যতেও তাদের এই কাজের ধারা অব্যাহত থাকবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আরো খবর...