গাংনী সাব-রেজিষ্ট্রি  কার্যালয় পরিদর্শন করেছেন এমপি খোকন 

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী সাব রেজিস্ট্রার অফিস পরিদর্শন করেছেন মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন।গাংনী সাব রেজিষ্ট্রার মাহফুজ রানার বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগের সত্যতা যাচাইয়ের লক্ষ্যে তিনি গতকাল বুধবার দুপুরে সাব রেজিষ্ট্রি অফিস পরিদর্শন করেন। স্থানীয়রা জানান, চলতি বছরের ৯ ফেব্র“য়ারী সাবরেজিষ্ট্রার মাহফুজ রানা গাংনীতে যোগদান করার পর থেকে নানা অনিয়মের সাথে জড়িয়ে পড়েছেন। অনিয়মের প্রতিবাদ করতে না পেরে দলিল লেখক থেকে শুরু করে অফিসের সদস্যদের চাপের মুখে রয়েছেন। ভূক্তভোগীরা জানান, সাব রেজিষ্ট্রার মাহফুজ রানা দলিল জমা নেওয়ার নামে ৬শ টাকা হাতিয়ে নেন। এছাড়া হেবা দলিল রেজিষ্ট্রি করতে সরকারী ফিস ৬৫০ টাকা হলেও নেয়া হচ্ছে ১৫ শ’ থেকে ২ হাজার টাকা পর্যন্ত। নকল দলিল উঠাতেও ৪৫০ টাকার পরিবর্তে হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অংকের টাকা। এছাড়া রেজিষ্ট্রিটি ফি সরকার ১% কম নেওয়ার নির্দেশনা দিলেও অজ্ঞাত ক্ষমতার দাপটে সরকারী নিয়মনীতিকে তোয়াক্কা না করেই পূর্বের মত রেজিষ্ট্রি ফি নেয়া হচ্ছে। এসব অনিয়মের প্রতিবাদ করলেও দলিল লেখক থেকে শুরু করে কর্মচারীরাও সাব রেজিষ্ট্রার মাহফুজ রানার রোষানলে পড়েন। এদিকে সাব রেজিষ্ট্রার মাহফুজ রানা তার অপকর্ম আড়াল করতে সাংবাদিক, সরকারী কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন মহলকে দিয়ে সাংবাদিককে ম্যানেজ করার চেষ্টা করেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলিল লেখক সমিতির এক নেতা জানান, সাব রেজিষ্ট্রার মাহফুজ রানার হাতে তাদের রুটি রুজি। তার অনিয়মের প্রতিবাদ করলে হুমকির মুখে পড়তে হয়। জমি রেজিষ্ট্রি করতে আসা এক মহিলা জানান- তার সকল কাগজপত্র সঠিক থাকার পরও ফাইলিংয়ের নামে ৯ শ’টাকা হাতিয়ে নেয়া হয়েছে। এছাড়া মসজিদ উন্নয়নের নামেও টাকা নেয়া হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক  এক মহুরা জানান, হ্যান্ডমাইক ক্রয়ের জন্য সাব রেজিষ্ট্রার মাহফুজ রানার নির্দেশে দলিল প্রতি ১৫০ টাকা হারে উত্তোলন করা হয়েছে। সম্প্রতি ২৮৫ জনের কাছ থেকে ১৫০ টাকা হারে উত্তোলন করা হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জানান, তিনি হ্যান্ড মাইক সাব রেজিষ্ট্রার অফিসকে উপহার দিয়েছেন। সাব রেজিষ্ট্রার মাহফুজ রানা জানান, আমি কোন অনিয়ম করিনি। আমার বিরুদ্ধে যে মিথ্যা অভিযোগ উত্থাপান করা হয়েছে। তা সত্য নয়।  সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন বলেন- গাংনী সাবরেজিষ্ট্রি অফিসে অতিরিক্ত টাকা নেওয়া সহ নানা অনিয়মের সংবাদ পেয়ে পরিদর্শন করি। এসময় ভূক্তভোগীসহ স্থানীয় সাংবাদিকরা সাবরেজিষ্টার মাহফুজ রানার সামনেই নানা অনিয়মের অভিযোগ করে। অনিয়মের বিষয়টি সাবরেজিষ্ট্রার মাহফুজ রানার সাথে জানতে চাওয়া হলে, অনিয়মের বিষয়টি এড়িয়ে যান। এসময় এমপি মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন বলেন- অনিয়ম না হলেই ভালো কথা। পরবর্তিতে কোন অনিয়ম পাওয়া গেলে সাব রেজিষ্ট্রার মাহফুজ রানার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এসময় তিনি সাব রেজিষ্ট্রার মাহফুজ রানাকে স্বচ্ছ ও সততার সাথে কাজ করার আহবান জানিয়ে দলিল রেজিষ্ট্রি খরচসহ সরকারী নানা নির্দেশনা সাইনবোর্ডে লিখতে নির্দেশনা দেন।

আরো খবর...