গাংনীর সাহারবাটি গ্রামে সংঘর্ষের মামলার প্রধান আসামী হাফিজুর এখন হাজতে

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার সাহারবাটি গ্রামে এক ক্লাবকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়। মামলার এক পক্ষের অন্যান্য আসামীরা আদালতে হাজিরা দিলেও প্রধান আসামী সাহারবাটি গ্রামের মাবেয়া মহল্লাদারের ছেলে স্থানীয় বিএনপির নেতা হাফিজুর রহমান পলাতক ছিলেন। দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর অবশেষে গত ১৪ সেপ্টেম্বর মেহেরপুর আদালতে তিনি হাজিরা দিতে যান। মামলার শুনানী শেষে বিচারক তাকে হাজতে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করেন। উল্লেখ্য, সাহারবাটি বাজারে একটি রক্তদান কেন্দ্রে স্থাপিত হয় বেশ কয়েক বছর আগে। রক্তদান কেন্দ্রটি ভাঙচুর করে হাফিজুর রহমানের লোকজন। এরই প্রতিবাদ করেন রক্তদান কেন্দ্রের সদস্য ও ছাত্রলীগ নেতা রাকিবুল ইসলাম টুটুলসহ অন্যান্য সদস্যরা। প্রতিবাদের সময় হামলার শিকার হয়েছিলেন টুটুলসহ অন্যান্যরা। এ নিয়ে গত ১ মার্চ  সন্ধ্যা ৭টার দিকে সাহারবাটি চারচারা বাজারে একটি সালিস বৈঠক বসে। সালিস চলাকালীন সময়ে হাফিজুর রহমানের লোকজনের হাতে হামলার শিকার হন রাকিবুল ইসলাম টুকুল তার শফিকুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন। এনিয়ে উভয়পক্ষ পাল্টাপাল্টি মামলা করে। ওই মামলায় হাফিজুর রহমানের হাজত হয়।

 

আরো খবর...