গাংনীতে শুনানীর নামে মুচলেকায় রফা

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে সরকারী রাস্তার পার্শ্বে একাধিক কর্তনকৃত গাছপালা গাংনী উপজেলা প্রশাসন উদ্ধার করে নিয়ে আসলেও অজ্ঞাত কারণে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা  হয়নি। জড়িতদের বিরুদ্ধে কোন আইনানুগ ব্যবস্থাও নেয়া হয়নি। অবশেষে শুনানীর নামে মুচলেকায় রফা। গতবছরের ২ জুন পূর্ববর্তি গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণুপদ পালের নির্দেশে কর্তনকৃত গাছগুলো জব্দ করা হলেও অজ্ঞাত কারণে আজও জড়িত ব্যক্তিদের নামে কোন মামলা করা হয়নি । সরেজমিনে ঘুরে ২৬/০৯/১৯ ইং তারিখে গাংনী উপজেলার হোগলবাড়ীয়া গ্রামের মাঠপাড়ায় সরকারী রাস্তার পার্শ্বের জমিতে বাঁশ কাটা  হয়েছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৬টি বাঁশ উদ্ধার করা হলেও জড়িত ব্যক্তির বিরুদ্ধে অদ্যাবধি একটিও মামলা করা হয়নি।  তবে কি ধরে নেয়া হবে উপজেলা প্রশাসন শুধুমাত্র লোক দেখানো খবরদারি করা হয়েছে। এনিয়ে ঘটনার পর থেকে জাতীয় ও স্থানীয় দৈনিকে একাধিক সংবাদ প্রকাশিত হলে অবশেষে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইয়ানুর রহমান সরকারী জায়গার বাঁশ কাটার সাথে জড়িত মোমিনুল ইসলামকে (বর্তমানে আদালতের কর্মরত পেশকার) অফিসে ডেকে নিয়ে শুনানী শেষে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে  উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইয়ানুর রহমান জানান, আমি বিষয়টি নিয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে শুনানীর জন্য অফিসে ডেকে নিই। মুচলেকা নিয়ে তাকে সতর্ক করা হয়েছে। তবে বেকসুর খালাস (মাফ) দেয়া হয়নি। পূণঃ তদন্ত  করে তার বিরুদ্ধে আইনগত  ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে তিনি মুচলেকার কপি সরবরাহ করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে বলেন, অফিসের গোপনীয় কাগজপত্র দেয়া সম্ভব নয়। এতে সাংবাদিকরা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

আরো খবর...