গাংনীতে  থানার নির্দেশ অমান্য লাঠিয়াল নিয়ে ক্রয়কৃত জমি জবরদখল

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ধানখোলা ইউনিয়নের চাঁন্দামারী গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রভাশালী প্রতিপক্ষের ভাড়াটে লাঠিয়াল বাহিনী নিয়ে  আজুব্বর হোসেন ও তার ছেলে সাবান আলীর ক্রয়কৃত জমি জবর দখলের ঘটনা ঘটেছে। ৫ গ্রামের ভাড়াটে দাঙ্গাবাজ, লাঠিয়াল নিয়ে আদালতে বিচারাধীন জমি দখল করে পাট বীজ বপন করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। দীর্ঘদিনের জমি সংক্রান্ত বিরোধ আপোষ মিমাংসা করতে সম্প্রতি গাংনী থানায় উভয় পক্ষকে নিয়ে সামাজিক শৃঙ্খলা রক্ষায় মুচলেকা নেয়া হয়। তারপরও প্রতিপক্ষ আব্দুল আলীম নামের জনৈক ব্যক্তি আইন অমান্য করে লোকজন নিয়ে জমি জবরদখল করেছে।এই বিরোধ পূর্ণ জমি নিয়ে দেওয়ানী আদালতে মামলা বিচারাধীন রয়েছে। যার নং- ২৮/১৮ ।    অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, চাঁন্দামারী গ্রামের আজুব্বর হোসেন ও তার ছেলে সাবান আলী  ৬০ এর দশকে হিন্দু সম্পত্তি তৎকালীন মনি মোহন সাহার ছেলে মেলেন্দু কান্তি সাহা ও তার দুই বোনের নিকট থেকে জমি ক্রয় করেন। সরেজমিনে ঘুরে জানা গেছে, উপজেলার শানঘাট মৌজার অন্তর্গত আর,এস খতিয়ান নং-৪৮৮, এস,এ খতিয়ান নং-৩০৪ দাগ নং-৫২৭০, ৫৪৩২, ৫৪৩৪, ৫৪৩৫, ৫৪৩৬, ৫৪৫৪। অন্য খতিয়ান আর,এস-৪৮৮ এবং এসএ-২৯৫ খতিয়ানভুক্ত ৫২৮৩ দাগ মিলে ১.৩৩ শতক জমি ক্রয করা হয়েছে।  ক্রয় সূত্রে জমি যথারীতি ভোগদখল করে আসছিলেন। অন্যদিকে  গ্রামের  ছমিরউদ্দীনের ছেলে প্রভাবশালী আব্দুল আলীম পার্শ্ববর্তী শানঘাট গ্রামের আব্দুল রহমান মহুরার ছেলে সেনাসদস্য হাফিজুর রহমানের নামে হিন্দুদের সম্পত্তি পাওয়ার অফ এটর্নি করার ভূয়া কাগজপত্র  দেখে ভূয়া দলিল করে ক্রয় করে জবর দখল করেছেন। দীর্ঘদিন জমি ওহিদের দখলে থাকলেও আব্দুল আলীম তার ভাড়াটে দাঙ্গাবাজ, লাঠিয়াল বাহিনী শানঘাটের মুন্তাজ আলীর ছেলে আব্দুর রহমান, চান্দামারীর গোলাপ বিশ্বাসের ছেলে সোহরাব আলী, ফকির মহাম্মদের ছেলে পাঁচু, হাপানিয়া গ্রামের ছমিরউদ্দীনের ছেলে আঃ আওয়াল, আফছার আলীর ছেলে আঃ রশিদ ও আঃ হান্নান, মকছেদ আলীর ছেলে সামসুল হক, খেলাফতের ছেলে আঃ মজিদ,খেজমতের ছেলে বনি ইয়ামিনসহ আরও কয়েকজন  সম্প্রতি মাঠে মহড়া দিয়ে জমি জবরদখল করেছে। এনিয়ে ওহিদ আলী জানান, আমার বাবা আজুব্বর হোসেন হিন্দুদের সম্পত্তি ক্রয় সূত্রে দলিল করে ভোগ দখল করে আসছি। আমরা দলিল মোতাবেক খারিজ করে খাজনা দিয়ে আসছি।তবে আমাদের নামে আরএস রেকর্ড  না হয়ে মূল মালিকের নামে হয়েছে। পক্ষান্তরে গ্রামের একদল ভূমি গ্রাসী আমাদের জমি জবর দখল করেছে। তারা যে ভূয়া কাগজ দেখিয়ে খারিজ করেছিল তা বাতিল হয়ে গেছে। এ ব্যাপারে দেঃ আদালতে মামলা বিচারাধীন রয়েছ্।ে দাঙ্গাবাজরা আমাদের প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। আমাদের ছেলে মেয়ে নিয়ে বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে রয়েছি। প্রতিপক্ষ আব্দুল আলীম জানান, আমরা শানঘাট গ্রামের রহমান মহুরার ছেলে হাফিজুর রহমানের নিকট থেকে আড়াই বিঘা জমি ক্রয় করেছ্ ি।আমাদেরও দলিল রয়েছে। তবে আমাদের নামে আরএস রেকর্ড বা খারিজ খাজনা হয়নি।   এব্যাপারে গাংনী থানার ওসি ওবাইদুর রহমান জানান, চান্দামারী গ্রামের  পক্ষ থেকে লিখিত একটি অভিযোগ পেয়েছি, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরো খবর...