গাংনীতে আ.লীগের দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে বিজয় দিবস পালনের পতাকা উত্তোলনের স্থান নির্ধারণ নিয়ে আ.লীগের দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল রোববার দুপুরের দিকে গাংনী উপজেলা শহরের বাসস্ট্যান্ডের রেজাউল চত্বরে গাংনী উপজেলা আ.লীগ ও গাংনী পৌর আ.লীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনার ঘটনা ঘটে। এ সময় পরিস্থিতি শান্ত করতে গাংনী উপজেলা শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। গাংনী পৌর আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম বাবু জানান, প্রতি বছরই আ.লীগের উদ্যোগে গাংনী রেজাউল চত্বরে বিজয় দিবস ও অন্যান্য দিবস পালন করা হয়ে থাকে। এ বছর বিজয় দিবসের আগে গাংনী উপজেলা আ.লীগের সভাপতি ও মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) সাহিদুজ্জামান খোকন তার নিজ বাসভবনে ১০ থেকে ১৫জন লোকজন নিয়ে আ.লীগের অন্যান্য নেতা-কর্মীদের না জানিয়ে প্রস্তুতি সভা করেন। সেখানে আমাদের জানানোর প্রয়োজন মনে করেনি। তাই আমরা মুজিব সৈনিক। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে রাজনীতি করে আসছি। আমরা বিজয় দিবস পালন করবো এ নিয়ে মেহেরপুর জেলা আ.লীগের নেতাদের সাথে কথা বলার পর  গাংনী পৌর আ.লীগের আয়োজনে বিজয় দিবস পালনের প্রস্তুতি  নিয়েছি। তারই ধারাবহিকতায় আমরা রেজাউল চত্বরে পতাকা উত্তোলনের স্থান নির্ধারণ করছিলাম। এরই মধ্যে এমপি সাহিদুজ্জামান  খোকনের লোকজন এসে আমাদের অনুষ্ঠানের বিঘœ ঘটনোর উদ্দেশ্য উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরী করে। গাংনী উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা জানান এর আগে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি সভায় গাংনী পৌর আ.লীগের নেতা-কর্মীদের ডাকলেও তারা আসেননি। এ কারণে এ বার তাদের ডাকা হয়নি। তবে বিষয়টি যেনো বাড়াবাড়ি না হয় সে নিয়ে এমপি সাহিদুজ্জামান খোকন ও মেহেরপুর জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেকের সাথে কথা হবে।

আরো খবর...