খোকসায় মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ

খোকসা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার খোকসায় মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে রহস্য জনক আগুন, অভিযোগের তীর প্রতিপক্ষের দিকে। এ ঘটনায় পাল্টা হামলার অভিযোগ করোলো প্রতিপক্ষ। জানা গেছে, মঙ্গলবার দিনগত গভীর রাতে উপজেলার শোমসপুর গ্রামে প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা আক্তার আলীর বাড়ির একটি পরিত্যাক্ত ঘরে রহস্যজনক আগুনের সূত্রপাত হয়। ফায়ার সার্ভিস ও প্রতিবেশীরা চেষ্টা করে আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। তবে মালামাল রাখার ঘরটি সম্পূর্ন ভস্মে পরিণত হয়। রক্ষা পায় মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের অন্যান্য বসত ঘর ও বাড়ির মানুষ। এ ঘটনার সূত্র ধরে বুধবার সকালে দুই পক্ষের মধ্যে হামলা পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে। এঘটনায় মুক্তিযোদ্ধার ভাই আজমল সরদার গুরুতর আহত হয়। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনার পর সকাল থেকে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।   মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী হামিদা বানু অভিযোগ করেন, বসত বাড়ির এক শতক জমি নিয়ে প্রতিবেশী সেনা সদস্য রফিকের সাথে দীর্ঘদিনের বিরোধ রয়েছে। এর জের ধরে সেনা সদস্য রফিক ও তার ছেলে সেনা সদস্য রাসেল তার বাড়িতে আগুন দিয়েছে। অগ্নিকান্ডের বাড়ির একটি বাঁশের পোয়া ভাঙ্গা নিয়ে প্রতিপক্ষের সাথে তাদের বিরোধ হয়েছিল। এ ঘটনার সূত্র ধরে গভীর রাতে প্রতিপক্ষরা তার বাড়ির ঘরে আগুন দিয়েছে। এ ছাড়া তার এক দেবরের উপর হামলা করেছে। তিনি এ বিষয়ে থানায় মামলা করবেন বলে জানান। ছুটিতে থাকা সেনা সদস্য রফিক জানান, তার বসত বাড়ির জমি নিয়ে প্রতিপক্ষের সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ রয়েছে। এ নিয়ে আদালতে মামলা রয়েছে। সে মামলায় নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তারপরেও প্রতিপক্ষ তার বাড়ির একটি দেয়াল ভেঙ্গে দিয়েছে। তাকে বিপদে ফেলতে এবার বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। রাতে অগ্নিকান্ডের সময় প্রতিপক্ষ (প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধার) বাড়ির ভিতর ১৫ জন বহিরাগত পুরুষ লোক ছিল। কিন্তু তারা কেউ আগুন নেভাতে চেষ্টা করেনি। ফায়ার সার্ভিস কর্মী ও প্রতিবেশীরা আগুন নিভিয়েছে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত খোকসা থানা পুলিশের এসআই সিরাজুল ইসলাম জানান, অগ্নিকান্ডের পর থেকে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। বুধবার সকালে হামলা পাল্টা হামলার ঘটনার পর দ্বিতীয় দফায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আরো খবর...