খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে কুষ্টিয়ায় বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে কুষ্টিয়ায় বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বিএনপি। কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে রবিবার সকাল ১১টায় কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতির বক্তব্য রাখেন বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও কুষ্টিয়া জেলা বিএনপি’র সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী। বক্তব্য রাখেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন। জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামিউল-উল হাসান অপুর পরিচালনায় সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মহাসিন রেজা, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ খান, যুগ্ম সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম আলম, মিরাজুল ইসলাম রিন্টু, আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চু, একে বিশ^াস বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার শাসসুজ্জাহিদ, যুব বিষয়ক সম্পাদক মেজবাউর রহমান পিন্টু, মিরপুর থানা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হক, ভোড়ামেরা শহর বিএনপির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু দাউদ, কুষ্টিয়া শহর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মিরাজুল ইসলাম  প্রমুখ। মেহেদী রুমী তার বক্তব্যে বলেন, খালেদা জিয়াকে মামলার কারণে নয়, গণতন্ত্র রক্ষার আন্দোলনের কারণেই কারাগারে রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া সব সময় জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করেছেন। এখনও তিনি তা করে যাচ্ছেন। এখন যে তিনি কারাগারে আছেন এটাও জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্যই। সরকার খালেদা জিয়াকে অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে সাজা দিয়ে কারাগারে আটক  রেখেছে। তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা চরম আকার ধারণ করেছে। তাকে কারামুক্ত করে উন্নত চিকিৎসা না করালে জীবনহানির ঝুঁকি রয়েছে। খালেদা জিয়াকে নিয়ে আমরা চরম শঙ্কায় আছি। দেশের প্রতিটি মানুষ জানে, সরকারের কারসাজিতেই দেশনেত্রীর জামিন নিয়ে টালবাহানা করা হচ্ছে।  দেশনেত্রীকে বাঁচাতে হলে এখনই জামিন ও সুচিকিৎসা দরকার। সোহরাব উদ্দিন বলেন, গণতন্ত্রের আপোষহীন নেত্রী খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করতে সব বাধা উপেক্ষা করে এখন রাস্তায় নামতে হবে। এখন আর ঘরে বসে থাকলে চলবে না। তিনি বলেন, এখন দেশ চলছে এক ব্যক্তির ভয়ঙ্কর কর্তৃত্ববাদী শাসন।  যেখানে দেশের জনগণ এবং গণতন্ত্রে বিশ্বাসী বিরোধী পক্ষকে বন্দি করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। আর সেই কারণেই বিরোধী দল ও মতের ওপর চলছে অবর্ণনীয় নানামুখী নির্যাতন। তাই জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আন্দোলন-সংগ্রামের কোনো বিকল্প নেই। তিনি আরও বলেন, দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া এবং কয়েক হাজার নেতা-কর্মীকে কারাগারে আটকে রেখে বিএনপিকে নির্মূল করার চেষ্টা করছে সরকার। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আরো খবর...