খাদিমপুরের রাসেলের সুদের জালে আটকা দশের অধিক পরিবার

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার  বহলবাড়িয়া ইউনিয়নের নওদা খাদিমপুর গ্রামের মৃত লিয়াকতের ছেলে রাসেল দশ বছর আগেও ছিলেন নিম্নবিত্ত পরিবারে মানুষ। সম্পদ, টাকা পয়সা কিছুই ছিল না। কিন্তু এখন সে কোটি কোটি টাকার মালিক। নয় মাইল বাসস্ট্যান্ডের কাছে প্রায় তিন কোটি টাকা ব্যয়ে দুটি আলিশান বাড়ী হাকিয়েছেন রাসেল। মাত্র কয়েক বছরের ব্যবধানে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছে । মাত্র ১০বছরের ব্যবধানে এত টাকার মালিক কিভাবে হল প্রশ্ন সবার। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে রাসেলের চোখে পড়ার মত কোন ব্যবসা নেই, কোন চাকরিও করেন না। তাহলে এত টাকার মালিক হলেন কিভাবে ? জানাগেল একটিই ব্যবসা সুদের, রাসেল চড়া সুদে মানুষের কাছে টাকা খাটিয়ে যখন সুদের টাকা দিতে না পারে তখন টাকা গ্রহীতাকে আটকে রাখে, জোর করে জমি-জায়গা লিখে নেই। এমন ঘটনার শিকার বহলবাড়ীয়া ইউনিয়নের মৃত ইসরাইরের ছেলে  মেহেদী হাসান। তিনি জানান, বছরখানেক আগে ব্যবসার জন্য রাসেলের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা সুদের ঋণ নেয়, বিনিময়ে রাসেল মেহেদীর কাছ থেকে ব্লাইংক চেক নেয়। এরপর থেকে মেহেদী নিয়মিত মাসিক হারে সুদের টাকা পরিশোধ করে আসছে। এক পর্যায় মেহেদী রাসেলের সব টাকা পরিশোধ করতে চাইলে রাসেল ২৮ লাখ টাকা দাবি করে। এত টাকা কিভাবে হলো রাসেলের কাছে মেহেদী চানতে চাইলে রাসেল বলেন সুদে আসলে এত হয়েছে। তখন মেহেদী রাসেলকে বলেন আমি যে এতদিন মাসিক হারে সুদ দিলাম সে টাকা কি হলো, রাসেল অস্বীকার করেন আমাকে কোন টাকা দেননি। এক পর্যায় মেহেদী নগদ ৬ লক্ষ টাকা পরিশোধ করলেও বাঁকি টাকার জন্য রাসেল চাপ দেয়। মেহেদী তারপর ২বিঘা জমি লিখে দেয় রাসেলের নামে। এরপরেও আরো টাকা দিতে হবে বলে মেহেদীকে  হুমকি ধামকি দিচ্ছে। না হলে চেকের মামলার হুমকি দিচ্ছেন রাসেল। মেহেদী বলেন আমার মত অনেককেই ঠকিয়ে জায়গা-জমি হাতিয়ে নিয়েছেন রাসেল। আসলের থেকে অনেকগুন টাকা ফেরত দিতে বাধ্য করেছেন রাসেল। রাসেল খুব প্রভাবশালী হওয়ায় ওর বিরুদ্ধে কেউ কথা বলেন না। কিছু বললে জানে মেরে ফেলার হুমকি দেয় রাসেল। বহলবাড়ীয়া গ্রামবাসীদের সাথে কথা বলে রাসেলের সুদের জালে সহায় সম্বল হারিয়েছেন আরো কিছু মানুষের নাম পাওয়া যায়। বহলবাড়ীয়াবাসি আয়ুব আলীর ছেলে হাকিম শেখ, নুরউদ্দিন’র ছেলে টিপু সুলতান, রানাখড়িয়ার মৃত মতিয়ার মন্ডলের ছেলে মাহাবুল আলম। এসব বিষয়ে জানার জন্য রাসেলের ফোনে ফোন দিলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। সুদের কারবারি রাসেলের কাছে সব হারাতে না হয় সাধারন মানুষের এ বিষয়ে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন ইউনিয়নের সচেতন মহল।

আরো খবর...