ক্রমেই খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতি হচ্ছে – মির্জা ফখরুল

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের ক্রমান্বয়ে অবনতি হচ্ছে। এরপরও তাকে সুস্থ দেখিয়ে আবার কারাগারে পাঠানোর ‘ষড়যন্ত্র’ হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।গতকাল রোববার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় তিনি খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও মুক্তির দাবিতে কর্মসূচি ঘোষণা করেন।বিএনপির মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়া গত ৫ মাস ধরে বিএসএমএমইউতে হাসপাতালে আছেন। কিন্তু তার স্বাস্থ্যের ইতিবাচক কোনো পরিবর্তন দেখা যায়নি। তিনি এখনও প্রচন্ড অসুস্থ। তার স্বাস্থ্যের ক্রমান্বয়ে অবনতি হচ্ছে। অথচ খালেদা জিয়া চেয়েছেন, নিজের পছন্দমতো হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে। কিন্তু সরকার সেটা দিচ্ছে না।খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে বিএসএমএমইউর ভিসির বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, বিএসএমএমইউর ভিসি বলেছেন, খালেদা জিয়া সুস্থ হয়ে গেছেন, তার রোগের উপশম হয়েছে। পিজির পরিচালকও একই সুরে কথা বলেছেন। আমরা মনে করি, এসব চক্রান্তের অংশ। তাকে আবারও অসুস্থ অবস্থায় কারাগারে পাঠানোর জন্য এটা একটা ষড়যন্ত্র। খালেদা জিয়া হুইলচেয়ারেও বসতে পারেন না উল্লেখ করে তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার পরিবার যখন গেছেন তখন দেখে আসছেন, তিনি এখনও উঠে বসতে পারেন না। তাকে দুজন ধরে ওঠাতে হয়। হুইলচেয়ারেও তিনি ঠিকভাবে বসতে পারেন না।অথচ বিএসএমএমইউর ভিসি বলছেন তিনি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে ১১ সেপ্টেম্বর ঢাকায় মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করেন বিএনপি মহাসচিব। একই দাবিতে ১২ সেপ্টেম্বর সারা দেশে মানববন্ধন করতে দলের নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেন তিনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ হোসেন, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রমুখ।

আরো খবর...