কেএসএম স্কুল এন্ড কলেজে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥ উৎসবমুখর পরিবেশে কেএসএম ঢাকামিনাপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় ও ক্রীড়া পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে প্রতিযোগিতার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন কুষ্টিয়া চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম সরওয়ার মুর্শেদ। দিনব্যাপী হরেক রকম খেলাধুলা শেষে বিকেলে অনুষ্ঠিত হয় পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা। কাকতালীয়ভাবে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে স্বপরিবারে উপস্থিত হন স্বরাষ্ট্রসচিব ও কেএসএম স্কুল এন্ড কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থী শহীদুজ্জামান। উপস্থিত হন প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগণ।

দীর্ঘ বছর পর নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন স্বরাষ্ট্রসচিব শহীদুজ্জামান। এসময় তিনি বলেন কেএসএম ঢাকা মিনাপাড়া স্কুল এন্ড কলেজ আমার প্রাণের প্রতিষ্ঠান। যে প্রতিষ্ঠান আমাকে আলোর পথ দেখিয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানের অনেক আদর্শবান শিক্ষক ছিলেন যারা প্রয়াত হয়েছেন। গুটি কয়েক শিক্ষক আজো জীবিত রয়েছেন। তাদের প্রতি আমার স্বশ্রদ্ধ সালাম। আবার অনেক সহপাঠি রয়েছেন যাদের সাথে দীর্ঘ বছর পর দেখা। এ এক দারুন অনুভূতি। এমন সুন্দর মুহুর্তের সম্মুখীন হবো কখনো কল্পনাও করিনি। তাই কৃতজ্ঞ স্কুল কর্তৃপক্ষের প্রতি এমন সুন্দর মুহুর্ত উপভোগ করবার সুযোগ করে দেবার জন্য। আমন্ত্রিত অতিথি ও প্রাক্তন শিক্ষার্থী হিসেবে তিনি এভাবেই নিজের অনুভূতির কথা তুলেন ধরেন কেএসএম ঢাকা মিনাপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে। স্কুল পরিচালনা পর্ষদ’র সভাপতি, বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী হালিমুজ্জামান বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা বলেন কুষ্টিয়ার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেএসএম ঢাকামিনাপাড়া স্কুল এন্ড কলেজ। যে প্রতিষ্ঠান থেকে স্বরাষ্ট্রসচিব শহীদুজ্জামানের মতো অনেক গুনি শিক্ষার্থী বের হয়েছেন। তাঁরা আজ দেশের শীর্ষ পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ পদে আসিন রয়েছেন। আমি আশা করি আগামীতেও এই প্রতিষ্ঠান থেকে অনেক গুনি শিক্ষার্থী বের হবেন। আতাউর রহমান আতা বলেন এই প্রতিষ্ঠানে অবকাঠামো উন্নয়নে কিছুটা পিছিয়ে রয়েছে। চিনিকলের মাঠটি খেলার মাঠ হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। কিন্তু এই মাঠটি যাতে করে স্কুল কর্তৃপক্ষকে হস্তান্তর করা যায় সেজন্য চিনিকল কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানান। তিনি জানান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক ও কুষ্টিয়া-৩(সদর) আসনের সাংসদ মাহবুবউল আলম হানিফ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে ব্যাপক কাজ করে যাচ্ছেন। অবকাঠামো উন্নয়নসহ বিভিন্ন শিক্ষাউপকরণ দিয়ে সহায়তা করছেন। পরিশেষে কেএসএম স্কুলের সার্বিক কল্যাণে মাহবুবউল আলম হানিফ এবং তিনি পাশে থাকবেন বলে প্রতিশ্র“তি দেন। সভাপতির বক্তব্যে বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী হালিমুজ্জামান বিশ্বাস বলেন আমরা ধন্য এই স্কুলেরই প্রাক্তন শিক্ষার্থী আমাদের অগ্রজ স্বরাষ্ট্রসচিব শহীদুজ্জামান আমাদের মাঝে উপস্থিত হয়েছেন। সেই সাথে ধন্য কুষ্টিয়ার কৃতি সন্তান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক ও কুষ্টিয়া সদর আসনের সংসদ সদস্য মাহবুবউল আলম হানিফের প্রতিনিধি সদর সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়েছেন। তিনি বলেন কেএসএম ঢাকামিনাপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের মত ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান পরিচালনা পর্ষদ’র সভাপতি হতে পেরে আমি ধন্য। চেষ্টা করেছি, করে যাচ্ছি স্কুলের হারানো ঐতিহ্য ফিরে আনার জন্য। যে প্রতিষ্ঠান নিয়ে এক সময় গর্ব করতাম সেই প্রতিষ্ঠানটির অগ্রযাত্রায় মাঝে কিছুটা ছন্দপতন হয়। এতে আমরা ব্যথিত হলেও পরিস্থিতি ফিরে আনতে সকলের সহযোগিতায় চেষ্টা করে যাচ্ছি। এজন্য অবশ্য শিক্ষক শিক্ষার্থী অভিভাবকসহ সকলের ঐকান্তিক সহযোগিতা প্রয়োজন।

কেএসএম স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা পর্ষদ’র অন্যতম সদস্য বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও প্রতিষ্ঠানের প্রাক্তন শিক্ষার্থী এমএ খালেকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রসচিব পতœী, স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা পর্ষদ’র সভাপতির সহধর্মিনী, হেলথ কেয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানীর পরিচালক নাসিমা বিলকিস, কেএসএম স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মঞ্জুরুল ইসলাম ডাবলু, জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক সাহাজ্জুল হোসেন, ১৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রশিদ বিশ্বাস, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হালিম, স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা পর্ষদ’র অন্যতম সদস্য রায়হান আলী, আব্দুল হান্নান, রাশিদুল ইসলাম, মটার প্রমুখ।

আরো খবর...