কুষ্টিয়া শহরে কমলাপুরে  ঠিকাদার আবু জাফরের বাড়ীতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি

তিন যুবক আটক
৮৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ৪টি মোবাইল ও নগদ ১২হাজার টাকা লুট

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া শহরের কমলাপুর পুলিশ লাইনের পেছনে সেনাবাহিনী ও পুলিশ বাহিনীর ঠিকাদার আবু জাফর মোল্লার স্বপ্ন বিলাস বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ঠিকাদার আবু জাফর মোল্লা জানান, মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে পাশের বাড়ির টিনের ছাউনির উপর দিয়ে আমার বাড়িতে প্রবেশ করে। তারা বাড়ির রান্না ঘরের জানালার গ্রিল কেটে দুই জন ভেতরে প্রবেশ করে। সেখান থেকে চাবি নিয়ে গেট খুলে ৮/৯ জন দেশীয় ধারাল অস্ত্র নিয়ে বাড়িতে প্রবেশ করে। পরে বাড়ির মহিলাদের এক রুমে আটকে রাখে এবং আমাকে ও আমার ছোট ভাই জাকির হোসেন মোল্লাকে বেঁধে ফেলে। ওরা আমাদের মারধর করে এবং হুমকি প্রদান করে। এই ডাকাতদল ৮৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ৪টা মোবাইল ও ১২হাজার নগদ টাকা নিয়ে যায়। তাদের প্রত্যেকের বয়স ১৮ থেকে ২২ এর মধ্যে। এদের মুখ ঢাকা ছিল কাউকে চিনতে পারিনি। পরে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসেছিল। আমি দীর্ঘদিন ধরে ১নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দাযড়ত্ব পালন করে আসছি। এছাড়াও রাশেদ এন্টারপ্রাইজ, গড়াই ডাল ও চাল মিল, জাফর ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ নামের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। আবু জাফর মোল্লা শহরের কমলাপুর পুলিশ লাইনের পেছন গেটের পাশের খয়বার আলম মোল্লার ছেলে। এলাকাবাসী জানায়, কিছুদিন আগে পুলিশ লাইনের সামনে চুরির ঘটনা ও তার কয়েক মাস আগে পুনাক মার্কেটে চুরির ঘটনা ঘটে। এখন এই ডাকাতি আমাদের ভাবিয়ে তুলেছে। এই ঘটনার পর কমলাপুর এলাকার আল আমিন, মুস্তাক ও আকিক কে পুলিশ নিয়ে গেছে বলেও জানান এলাকাবাসী। একটি সূত্রে জানা যায়, ৫জন একটি প্রাইভেট কারে করে রেনউইক এর দিক দিয়ে যায়। তাদের কাছে আগ্নেয়াস্ত্র ছিল বলে জানান তারা। এদিকে পুলিশ লাইনের পিছনে এই ডাকাতি হওয়ায় শহর জুড়ে আতঙ্ক বিরাজ করছে। এদিকে কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম মোস্তফার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমরা এই ঘটনার পর জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন জনকে নিয়ে আসা হয়েছে। ঘটনা তদন্ত চলছে খুব তাড়াতাড়ি এই গ্র“পকে ধরা পরবে বলেও জানান তিনি।

আরো খবর...