কুষ্টিয়া পৌরসভার আয়োজনে পুষ্টি সহায়তা ও ব্যবসা অনুদান প্রদান

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে কুষ্টিয়া পৌরসভার অডিটোরিয়ামে পুষ্টি সহায়তা ও ব্যবসা অনুদান প্রদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। কুষ্টিয়া পৌরসভা উন্নয়নের রূপকার ও জননন্দিত মেয়র আনোয়ার আলী’র সভাপতিত্বে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম-সচিব ও জাতীয় প্রকল্প পরিচালক প্রান্তিক জনগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্প আব্দুল মান্নান। বিশেষ অতিথি ছিলেন এই প্রকল্পের হাউজিং কো-অর্ডিনেটর এএসএম শাহারিয়ার জাহান, কুষ্টিয়া অঞ্চলের স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্বাবধায়ক প্রকাশ চন্দ্র বিশ^াস, কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ডাঃ রওশন আরা বেগম,  পৌরসভার প্যানেল অব মেয়র-১ মতিয়ার রহমান মজনু, পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী ও সদস্য সচিব টিপিবি প্রান্তীক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্প’ কুষ্টিয়া পৌরসভা। প্রধান আলোচক যুগ্ম-সচিব ও প্রকল্প পরিচালক আব্দুল মান্নান বলেন- এদেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়নের লক্ষে ১২টি সিটি করপোরেশন ও ৭টি পৌরসভায় এই প্রকল্পের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। তার মধ্যে কুষ্টিয়া পৌরসভায় দীর্ঘদিন যাবৎ এই প্রকল্প চলমান আছে। এই প্রকল্পের অর্থায়ন করছে ডিএফআইডি, ইউএনডিপি ও বাংলাদেশ সরকার। তিনি পৌর পরিষদের উদ্দেশ্যে বলেন, এই প্রকল্পের অর্থায়নে যে সকল উন্নয়ন হচ্ছে সেটা আপনাদের নিজস্ব কর্মকান্ড হিসেবে দেখাবেন। কেননা এই কার্যক্রম পরিচালনায় যদি কোন ঘাটতি থাকে তাহলে পুনরায় এই প্রকল্পের কার্যক্রম পেতে আপনাদের সমস্যা হবে। তিনি আরোও বলেন- এই পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী সহ আপনাদের সুনাম রয়েছে। এই সুনাম যেন অক্ষুন্ন থাকে সেদিকে বিশেষভাবে খেয়াল রাখার আহবান জানান। এছাড়াও বিতর্কমুক্ত জায়গায় অবকাঠামো নির্মানের অনুরোধ করেন। এছাড়াও মহিলাদের ট্রেনিংয়ের মাধ্যমে দক্ষতা বৃদ্ধি করে ব্যক্তি জীবন সম্পর্কে সচেতনতার বৃদ্ধি করার জন্য কাজ করা হচ্ছে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে সুন্দর সমাজ বিনির্মানে সবাইকে কাজ করার আহবান জানান। সভাপতির বক্তব্যে  পৌরসভা উন্নয়নের রূপকার ও জননন্দিত মেয়র আনোয়ার আলী বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিলো এদেশ হবে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ। তার স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রান্তীক জনগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে এদেশের মানুষের ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে শিক্ষাবৃত্তি, মাতৃদুগ্ধ ভাতা, অবকাঠামো উন্নয়ন, ব্যবসা অনুদানসহ নারীর ক্ষমতায়নের জন্য বিভিন্ন  ট্রেনিং নানামুখী কার্যক্রম পরিচালিত করে আসছি। আপনাদের সহযোগীতায় আগামীতে এই প্রকল্পের মাধ্যমে পৌর এলাকায় দারিদ্র মানুষের জীবনমান উন্নয়ন করা হবে। তিনি আরোও বলেন, আজ পৌর এলাকায় ৩০০ জনকে পুষ্টি ভাতা ও ২০০ জনকে ব্যবসা ভাতা প্রদান করা হয়। এসময় বক্তব্য রাখেন এই প্রকল্পের টাউন ম্যানেজার সেলিম মোড়ল ও এই প্রকল্পের সুবিধা ভোগীরা। অনুষ্ঠানের শুরুতেই পৌর শিল্পগোষ্ঠির পরিবেশনায় জাতীয় সংগীত পরিবেশিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার কাউন্সিলরবৃন্দসহ পৌরসভা ও পৌরসভায় পরিচালিত প্রকল্পের কর্মকর্তাবৃন্দ। উল্লেখ্য সকালে এই প্রকল্পের অর্থায়নে বিভিন্ন উন্নয়নমুলক কর্মকান্ড ঘুরে দেখেন প্রকল্প পরিচালক ও অতিথিবৃন্দ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী সাবিনা ইসলাম। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আরো খবর...