কুষ্টিয়া জেলা তামাক নিয়ন্ত্রণ টাস্কফোর্স কমিটির মিটিং অনুষ্ঠিত

ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ আইন জনস্বার্থে একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নে ত্রৈমাসিক জেলা তামাক নিয়ন্ত্রণ টাস্কফোর্স কমিটির মিটিং গতকাল  বেলা ১২টার সময় এডিসি জেনারেলের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এডিসি জেনারেল মো: আজাদ জাহানের সভাপতিত্বে বিগত মিটিং এর রেজুলেশন পাঠ করেন সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি এমওসিএস ডা: মো: রাকিবুল হাসান। এ পর্যায়ে আইনের বাস্তবায়ন ও চ্যালেজ্ঞগুলো তুলে ধরে সাফ‘র নির্বাহী পরিচালক মীর আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ধারা ৪ অনুযায়ী পাবলিক প্লেসে ধূমপানের জরিমানা ৩০০টাকা, ধারা ৫ অনুযায়ী তামাকজাত দ্রব্য বা সিগারেটের বিজ্ঞাপন দন্ডনীয় অপরাধ- আইন অমান্যে জরিমানা অনধিক এক লক্ষ টাকা বা অনূর্ধ্ব ৩ মাস বিনাশ্রম কারাদন্ড, ধারা ৬ক অনুযায়ী অপ্রাপ্ত বয়স্কদের নিকট সিগারেট বিক্রয় করা দন্ডনীয় অপরাধ, আইন অমান্যে জরিমানা ৫০০০ টাকা, ধারা ৭ অনুযায়ী ধূমপানমুক্ত এলাকা নিশ্চিত করা কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব, ব্যর্থহলে জরিমানা ৫০০ টাকা, ধারা ৮ অনুযায়ী প্রতিটি পাবলিক প্লেস ও পরিবহনে “ধূমপানমুক্ত এলাকা” লিখা সাইনেজ লাগানো বাধ্যতামূলক, আইন অমান্যে জরিমানা ১০০০ টাকা, ধারা ১০ অনুযায়ী প্রতিটি তামাকজাত দ্রব্যের প্যাকেটে সচিত্র স্বাস্থ্য সর্তকবাণী প্রদান বাধ্যতামূলক, আইন অমান্যে জরিমানা অনধিক ২ লক্ষ টাকা বা অনূর্ধ্ব ৬ মাস বিনাশ্রম কারাদন্ড। এপর্যায়ে এডিসি জেনারেল মহদয় বলেন, আমরা যারা কমিটির সদস্য নিজেদের অফিসগুলোতে যেন নোস্মোকিং সাইনেজ লাগানো নিশ্চিত করি এবং জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে এব্যাপারে চিঠি প্রদান করা হবে এবং ব্যক্তিগতভাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের অবহিত করবো। তামাক কোম্পানী কর্তৃক বিজ্ঞাপন প্রদর্শণ দন্ডণীয় অপরাধ। নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে। আইন বাস্তবায়নে টাস্কফোর্স কমিটির সকল সদস্যকে সক্রিয় ভূমিকা রাখার জন্য অনুরোধ জানায়। আলোচনা শেষে সাফ‘র পক্ষ থেকে সবাইকে মাদক ও ধূমপান বিরোধী পতাকা প্রদান করা হয় এবং জনসচেতনতার লক্ষে এডিসি সবাইকে সাথে নিয়ে ফটোসেশনে অংশগ্রহন করেন। এসময় উপস্থিত থেকে আলোচনায় অংশগ্রহনকরেন পরিবার পরিকল্পনার ডিডি মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, সহকারি তথ্য অফিসার শিল্পী মন্ডল, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মো: মখলেছুর রহমান, চেম্বার অব কর্মাসের প্রতিনিধি সহ-সভাপতি এস এম কাদেরী শাকিল, ইসলামিক ফাউন্ডেশন‘র অফিস সহকারি মো: আবু আইয়ুব আনছারী, জেলা শিক্ষা অফিসের গবেষণা কর্মকর্তা শেখ মশিউর রহমান, স্যানেটারী ইন্সপেক্টর মো: ইনসাফ হোসেন, ফায়ার সার্ভিসের সহকারি পরিচালক রফিকুল ইসলাম, সিএস অফিসের ডিএইচএস মো: নজরুল ইসলাম, সাফ‘র নির্বাহী পরিচালক মীর আব্দুর রাজ্জাক, বাংলাদেশ মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি সভাপতি মো: আসাদুর রহমান, পিএসটিসি‘র শাহানাজ খাতুন, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মৎস্য বিষয়ক প্রশিক্ষক মো: জাহাঙ্গীর আলম, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: তবিয়ুর রহমান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের এডিডি রঞ্জন কুমার প্রামানিক। সার্বিক উপস্থাপনায় ছিলেন সিনিয়র ও জুনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মো: আব্দুর রহমান ও মো: শামছুল আলম। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আরো খবর...