কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগের হিসাব সহকারী টিপুর বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজীর অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগের হিসাব সহকারী মোঃ আশরাফুল ইসলাম টিপুর বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজীর অভিযোগ উঠেছে। একাধিক সূত্রে পাওয়া তথ্যে জানা জানা যায়- এই হিসাব সহকারী টিপু বিএনপি’র কর্মী হিসেবে তৎকালীন গণপূর্ত মন্ত্রী  মির্জা আব্বাসের মাধ্যমে হিসাব সহকারী পদে নিয়োগপ্রাপ্ত হয়ে ২০০৬ সালে চুয়াডাঙ্গা গণপূর্ত বিভাগে যোগদান করেন। তিনি নির্বাহী প্রকৌশলীকে ম্যানেজ করে  চুয়াডাঙ্গা গণপূর্ত বিভাগের অফিস তথা টেন্ডার প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রনে নিয়ে প্রায় দীর্ঘ ১৪/১৫ বৎসর  টেন্ডারবাজী করে অবৈধভাবে অর্থ উপার্জন করেছে। তার এহেন কার্যকলাপে তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)-এ অভিযোগ হয়। এক পর্যায়ে তিনি দুদকের হাত থেকে আড়াল হতে নিজ জেলা কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগে বদলী হয়ে আসে। সূত্র জানা যায়, কুষ্টিয়াতে বদলী হতে আসার পর বেশ কিছুদিন নীরব থেকে তৎসময়ের নির্বাহী প্রকৌশলী  মোঃ শফিউল হান্নান (বর্তমানে সাময়িক বরখাস্ত) সাথে যোগসাজোসে টেন্ডারবাজী করে তাদের  মনোনীত ঠিকাদারকে কাজ পাইয়ে দিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। বর্তমান নির্বাহী প্রকৌশলী দক্ষ ও বিচক্ষন অফিসারে মধ্যে একজন। তাঁর কাছেও তিনি আস্থাভাজন হয়ে ওঠে। বর্তমান নির্বাহী প্রকৌশলীর চোখের আড়ালে টিপু একাই পুরা অফিসসহ  টেন্ডার প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রন করে মনোনীত ঠিকাদারকে কাজ পাইয়ে দেয় এবং ২/১ জনের  সাথে কাজের পার্টনার আছে বলে জানা গেছে। এক পর্যায়ে স্থানীয় ঠিকাদারবৃন্দ তার বিরুদ্ধে নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে মৌখিক অভিযোগ করেন। তাতেও কোন প্রতিফলন হয় নাই। এভাবে অবৈধ উপার্জন করে তিনি নামে/ বেনামে কুষ্টিয়া শহরের হাউজিংএ পৈত্রিক ভিটায়  তিনতলা ভবন নির্মাণ করেন এবং  হাউজিং এ আরো দুটি প্লট আছে তার নামে। কুষ্টিয়া শহরের এন,এস রোডে  থানা মোড় মার্কেটে দোকান রয়েছে।  শেয়ার বাজারেও  প্রায় অর্ধ কোটি টাকার লেন-দেন রয়েছে এই হিসাব সহকারী টিপুর। তিনি বেতন পান ২৫ হাজার টাকা অথচ জীবন বীমা শিক্ষাবৃত্তি ইন্সুরেন্সে মাসিক ২৫ হাজার টাকা করে প্রিমিয়াম হিসাবে কিস্তি দেন। ১৫/২০ দিন আগে তিনি হিসাব সহকারী থেকে প্রমোশন পেয়ে হিসাব রক্ষক হিসাবে নিলফামারী  গণপূর্ত বিভাগে যোগদান করেন। সেখানে কর্মরত অবস্থায় এখনও কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগের টেন্ডার নিয়ন্ত্রন করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা গেছে তিনি নিলফামারী থেকে এসে   গতক ২৫ জানুয়ারি কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগে উপ-সহকারী প্রকৌশলীদের নিয়ে টেন্ডার সংক্রান্ত কাজ নিয়ে মিটিং করেন (যা সিসিটিভি’র ফুটেজ দেখলে জানা যাবে)। স্থানীয় ঠিকাদারবৃন্দ অভিযোগ করেও প্রতিকার না পেয়ে আতঙ্কে আছে অনেকে। মোবাইল ফোনে তার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। আশরাফুল ইসলাম টিপু’র অবৈধ সম্পদের সুষ্ঠু তদন্তসহ তার এই টেন্ডারবাজীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য দাবী জানিয়েছেন ঠিকাদারগণ।

আরো খবর...