কুষ্টিয়ায় স্কুল ছাত্রকে কুপিয়ে রক্তাক্ত করল বন্ধুরা

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় এক স্কুল ছাত্রকে কুপিয়ে রক্তাক্ত করেছে তারই বন্ধুরা। হামলায় গুরুত্বর আহত রাতুল হাসান (১৫) কুষ্টিয়া টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। হামলাকারীরা একই স্কুলের রাতুলের সহপাঠি। গতকাল সোমবার দুপুরে শহরের ঈদগাহপাড়া এলাকায় এই হামলার ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় রাতুলকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায় স্থানীয়রা। বর্তমানে রাতুল সেখানে চিকিৎসাধীন আছে। সে কুষ্টিয়া শহরের ঈদগাহপাড়া এলাকার মামুনুর রহমান সন্টুর ছেলে।

আহত স্কুল ছাত্রের মা জানান, রাতুলের বন্ধু আজমল, হৃদয় ও সোহাগের সাথে রাতুলের আগেও ঝামেলা হয়েছিলো। আজকেও তারাই এই হামলা করেছে বলে তিনি জানান। তবে কি কারনে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে সে বিষয়ে এখনো কিছু জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর ১টার দিকে কয়েকজন অল্প বয়সী ছেলে হঠাৎ রাতুলকে ঘিরে ফেলে। রাতুলের সাথে তাদের বাকবিতন্ডা ও ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে অল্প বয়সী ছেলেরা ধারালো অস্ত্র বের করে আঘাত করতে থাকে। এসময় রাতুল মাটিতে পড়ে যায়। তারা রাতুলকে রক্তাক্ত জখম করে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়। আহত স্কুল ছাত্র প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন জানান, হামলার শিকার এবং হামলাকারীরা এক অপরের সহপাঠী। মোবাইল ফোনে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে শহরের কেন্দ্রীয় ইদগাহ মাঠে রাতুল হাসান নামে ওই কিশোরকে কুপিয়ে মারাত্বক আহত করে তার সহপাঠীরা। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। ওসি বলেন, হামলাকারীদের ধরতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। তার পরিবারকে থানায় অভিযোগ দিতে বলেছি। অভিযোগ দিলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আরো খবর...