কুষ্টিয়ায় নতুন করে আরো ২৬ জন করোনায় আক্রান্ত

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় নতুন করে আরো ২৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত ৬৭৮ জন কোভিড  রোগী সনাক্ত হলো। আর এ পর্যন্ত জেলায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ জনে।

গতকাল ২ জুলাই বৃহস্পতিবার রাতে কুষ্টিয়া সিভিল সার্জন অফিস  থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। কোভিড ১৯ আপডেটে জানানো হয়-কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে বৃহস্পতিবার  ৩৬৭ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে কুষ্টিয়ার ১৩৯ টি নমুনা ছিল। তাতে জেলায় নতুন করে ২৬ জনকে আক্রান্ত হয়েছে। নতুন আক্রান্তের মধ্যে দৌলতপুর উপজেলায় ৩ জন, মিরপুরে ১ জন, সদরে ১৬ জন, কুমারখালীতে ৪ জন এবং খোকসায় ২ জন । সদর উপজেলায় আক্রান্ত ১৬ জনের ঠিকানা শহরের পেয়ারাতলা ২ জন, হাউজিং ডি ব্লক ১ জন, উত্তর আমলাপাড়া ১ জন, হরিপুর ১ জন, পূর্ব মজমপুর ১ জন, আমলাপাড়া ১ জন , কুমারগাড়া ১ জন, মজমপুর ১ জন, র‌্যাবগলি ১ জন, ঈদগা পাড়া ১ জন, বড়িয়া ১ জন, থানাপাড়া ১ জন, মঙ্গলবাড়িয়া ১ জন, কালিশংকরপুর ২ জন। মিরপুর উপজেলায় আক্রান্ত ১ জনের ঠিকানা অঞ্জনগাছি। দৌলতপুর উপজেলায় আক্রান্ত ৩ জনের ঠিকানা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ১ জন, মালিপাড়া ১ জন, আল্লারদরগা ১ জন। কুমারখালী উপজেলায় আক্রান্ত ৪ জনের ঠিকানা সালঘরমাধুয়া ১ জন,  আলাউদ্দিন নগর ১ জন, বানিয়াপাড়া ১ জন ও পান্টিতে ১ জন। খোকসা উপজেলায় আক্রান্ত ২ জনের ঠিকানা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। নতুন আক্রান্তের মধ্যে পুরুষ ১৮ জন, মহিলা ৮ জন। এই নিয়ে কুষ্টিয়ায় এখন পর্যন্ত ৬৭৮ জন কোভিড  রোগী সনাক্ত হল। (বহিরাগত বাদে)। উপজেলা ভিত্তিক  রোগী সনাক্তের মধ্যে দৌলতপুর ৯২, ভেড়ামারা ৮১, মিরপুর ৪৪, সদর ৩৫২, কুমারখালী ৮৪, খোকসা ২৫ জন। পুরুষ  রোগী ৪৯৬ ও নারী ১৮২ জন। সুস্থ হয়ে ছাড় পেয়েছেন ২৮৩ জন। উপজেলা ভিত্তিক সুস্থ ২৮১ জন। এর মধ্যে  দৌলতপুর ৩৫, ভেড়ামারা ৪৮, মিরপুর ১৮, সদর ১৩১, কুমারখালী ৩৬ ও খোকসায় ১৩ জন। বহিরাগত সুস্থ ২ জন। বর্তমানে হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন ৩৬৪ জন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৩১ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু  – ১১ জন (কুমারখালী-২, দৌলতপুর-১, ভেড়ামারা-১, কুষ্টিয়া সদর ৭)

মৃতদের মধ্যে পুরুষ ১০ জন এবং মহিলা ১ জন।

সর্বসাধারণের প্রতি অনুরোধ করে সিভিল সার্জন ডাঃ এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, আপনারা আতংকিত না হয়ে সতর্কতা অবলম্বন করুন। ঘরে থাকুন, বিনা প্রয়োজনে ঘরের বাইরে বের হবেন না। বার বার সাবান দিয়ে হাত  ধৌত করুন। যত্রতত্র কফ, থুতু ফেলবেন না। হাঁচি, কাশি  দেয়ার সময় টিস্যু পেপার, রুমাল, বাহুর ভাঁজ ব্যবহার করুন ও ব্যবহৃত টিস্যু ঢাকনাযুক্ত ডাস্টবিনে ফেলুন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। একে অপরের থেকে কমপক্ষে ৬ ফুট দূরত্ব বজায় রাখুন ও মাস্ক ব্যবহার করুন।

আরো খবর...