কুষ্টিয়ার কন্দর্পদিয়ায় প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করেছে এক মহিলাকে

জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের
থানায় মামলা হলেও ৮দিনে গ্রেফতার হয়নি কেউ

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এক মহিলাকে বেধড়ক পিটিয়ে ও কুপিয়ে গুরুত্বর রক্তাক্ত আহত করেছে প্রতিপক্ষ। ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৮ ফেব্র“য়ারী  কুষ্টিয়া সদর উপজেলার মনোহরদিয়া ইউনিয়নের ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার কন্দর্পদিয়া শাহপাড়া গ্রামে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা হলেও পুলিশ হাতে এখন পর্যন্ত গ্রেফতার হয়নি আসামীরা। বাদীর অভিযোগ মামলা তুলে নিতে আসামীরা তাকে ও তার পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে চাপ সৃষ্টি ও হুমকী প্রদান করে আসছে। এর ফলে স্বাভাবিক জীবন যাপনে ব্যাঘাত সৃষ্টিসহ আতঙ্কের মধ্যে দিনতিপাত করছে বাদীর পরিবারের সদস্যরা।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, মনোহরদিয়া ইউনিয়নের ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) থানার কন্দর্পদিয়া শাহপাড়া গ্রামের ইদ্রিস শাহের ছেলে আনিচুর রহমানের সাথে ইব্রাহিম শাহের ছেলে আজিজুল শাহ ও তার ছেলে মোঃ রুবেল, মোঃ রবিন এবং স্ত্রী  নার্গিস খাতুনের  দীর্ঘদিন যাবৎ জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল । এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৮ফেব্র“য়ারী  সকাল ৭টার সময়  আজিজুল শাহ, তার স্ত্রী এবং দুই ছেলে মিলে লাঠি এবং হাসুয়া নিয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে  আনিচুর রহমানের মা  কাজলী বেগম (৫০) কে  বেড়ধরক পিটিয়ে ও কুপিয়ে গুরুত্বর রক্তাক্ত আহত করে। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে । এ ব্যাপারে আনিচুর বাদী হয়ে গত ১ মার্চ ইবি থানায় ইব্রাহিম শাহের ছেলে  আজিজুল শাহ ও তার ছেলে মোঃ রুবেল, মোঃ রবিন এবং স্ত্রী  নার্গিস খাতুনের  বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে যার নং-২ । ঘটনার পরবর্তী মামলার পর দীর্ঘ ৮ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত  মামলার আসামীদের ধরতে পারেনি পুলিশ। মামলার বাদী ও এলাকাবাসী জানিয়েছে, আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ তাদের ধরছে না । এখানে উল্লেখ্য, উক্ত আসামীরা  আনিচের পরিবারকে ইতিপূর্বে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল । প্রাণনাশের হুমকি দেয়ায়  আনিচের  পিতা ইদ্রিস শাহ উক্ত আসামীদের বিরুদ্ধে ইবি থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করে। যার নং ৯৮৮, তারিখ-২৯/১০/২০০৪ ইং ।

আহত কাজলী বেগম কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ী ফিরলেও মামলার আসামীদের অব্যাহত হুমকীতে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এই পরিবারটি পুলিশ প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আরো খবর...