কুমারখালীতে ২শত বিঘা জমির উপরে বিসিক শিল্প নগরী গড়ে তোলা হবে

কুষ্টিয়ায় দু’দিনব্যাপী ‘সুশাসনের জন্য কৌশলগত যোগাযোগ’ বিষয়ক কর্মশালায় ডিসি আসলাম হোসেন 

নিজ সংবাদ ॥ জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট এবং পি৪ডি আয়োজিত সুশাসনের জন্য কৌশলগত যোগাযোগ বিষয়ক দু’দিনব্যাপী কর্মশালার উদ্বোধন হয়েছে। গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় কুষ্টিয়া সার্কিট হাউস হলরুমে কর্মশালার উদ্বোধন করেন জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক শাহিন ইসলাম (এনডিসি)। জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের পরিচালক মঞ্জুরুল আলমের সভাপতিত্বে ৫টি পলিসি টুলস নিয়ে কর্মশালার সূচনা হয়। শুরুতে এপিএ ও জিআরএস নিয়ে বিস্তারিত আলোচনায় অংশ নেন জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের পরিচালক (প্রশাসন) মঞ্জুরুল আলম। জেলা প্রশাসক মো, আসলাম হোসেন  বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বিষয়ক আলোচনা করেন। তিনি বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি কি? এতে মানুষ কিধরনের সুবিধাদি পাচ্ছে এর পরিবেক্ষনে সাংবাদিকদের করনীয় বিষয়ে দীর্ঘ আলোচনা করেন। জেলা প্রশাসক বলেন, মার্চ মাস অত্যন্ত বেদনাদায়ক মাস, এই মাসে দেশের স্বাধীকার যুদ্ধের সুত্রপাত হয়েছিল। তিনি বলেন, দেশ দারিদ্র বিমোচন,শিক্ষা উন্নয়নের মত গুরুত্বপূর্ণ ধারায় এগিয়ে চলেছে। নীতি, নৈতিকতা ও শুদ্ধাচারের চর্চা ছাড়া উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলা সম্ভব নয়। তিনি বলেন, কুষ্টিয়ায় ২৯টি টার্গেট নিয়ে কাজ করা হচ্ছে এর মধ্যে বস্ত্র শিল্পকে বেশি প্রধান্য দেয়া হয়েছে। কুমারখালীতে বস্ত্র শিল্পের পুনরুদ্ধার ও বিকোশিত করার জন্য ২শত বিঘা জমির উপরে বিসিক শিল্প নগরী গড়ে তোলা হবে। কুমারখালীর বস্ত্র শিল্পের সাথে সম্পৃক্তারা তাদের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে উপকৃত হবে।  জেলা প্রশাসক বলেন, জানার অধিকার সকলের রয়েছে। কুষ্টিয়ায় বার্ষিক পরিকল্পনা নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময় করলে এর উপকারিতা আসবে। সাধারন মানুষেরা তা জানতে পারবে। তিনি আরো বলেন,আপনারা সাংবাদিক, আপনারা আপনাদের মেধা দিয়ে দেশের কল্যানে কাজ করতে পারেন। জনমুখি ও উন্নয়ন মুখী প্রশাসন দেশের উন্ন য়নের গতিধারাকে পাল্টে দিতে পারে। তাই আসুন আমরা সকলে শুদ্ধাচারের মাধ্যমে দেশকে গড়ে তুলি। বাংলাদেশ সৃখি সমৃদ্ধ দেখতে চাইলে আমাদের সকলকেব দায়িত্বশীল ও দায়িত্ববোধকে জাগ্রত করতে হবে। তিনি বলেন, কুষ্টিয়ার সাংবাদিকদের দুদিনের এই প্রশিক্ষন অত্যন্ত গুরুত্ব বহন করে। সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমুখি কর্মকান্ডকে সাধারন মানুষের সামনে তুলে ধরে সরকারে ভাবমুতিকে সমুজ্জল করতে হবে। কর্মশালায় জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বিষয়ে আলোচনায় অংশ নেন জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট এর উপপরিচালক (প্রশাসন) সৈয়দ জাহিদুল ইসলাম। তথ্য অধিকার বিষয়ে আলোচনা করেন কুষ্টিয়ার জেলা সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা  তৌহিদুজ্জামান, এছাড়া কর্মশালায় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নে জবাব দেন জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট এর উপ-পরিচালক আবদুল গাফ্ফার। কোর্চ পরিচালক হিসেবে ছিলেন আইরিন সুলতানা। জিআরএস ও এপিএ কুষ্টিয়ায় দু’দিনব্যাপী ‘সুশাসনের জন্য কৌশলগত যোগাযোগ’ বিষয়ক কর্মশালার আজ দ্বিতীয় দিনে কয়েকটি কী নোট নিয়ে আলোচনা শেষে সনদ পত্র বিতরনীর মধ্য দিয়ে শেষ হবে। কুষ্টিয়ায় কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত গণমাধ্যমকর্মী অংশগ্রহন করেন।

আরো খবর...