কলকাতায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ব্যাংক কর্মকর্তার নিজ বাড়ী খোকসায় দাফন

খোকসা প্রতিনিধি ॥ কলকাতায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ব্যাংক কর্মকর্তা ফারহানা ইসলাম তানিয়ার গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়ার খোকসায় তাকে দাফন করা হয়েছে। গতকাল রবিবার বেলা পৌনে ১টার দিকে ব্যাংক কর্মকর্তা ফারহানা ইসলাম তানিয়ার (৩০) লাশবাহী এ্যাম্বুলেন্সটি উপজেলার বেতবাড়িয়া ইউনিয়নের চাঁদট গ্রামে পৌছালে শোকের মাতম শুরু হয়। বাদজোহর গ্রামটির পূর্বপাড়া মসজিদের সামনে মরহুমার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। তাকে গ্রামের কবর স্থানে দাফন করা হয়। মেয়ের মৃতদেহ বাড়ি থেকে নিয়ে যাওয়ার পর বিলাপ করছিলেন নিহতের মা খুশি বেগম। চিকিৎসা নেওয়ার জন্য তানিয়া ভারত গিয়েছিল। কিন্তু সুস্থ্য হওয়ার বদলে তাকে লাশ হয়ে ফিরতে হল। রবিবার রাতের ফ্লাইটে তার দেশে ফেরার কথা ছিল। কলকাতার শেকসপিয়ার সরণি ও লাউডন ষ্ট্রিটের সংযোগ সড়কে দুর্ঘটনায় নিহত তানিয়ার মৃতদেহটি রবিবার সকালে বেনাপল স্থল বন্দরদিয়ে বাংলাদেশে ফেরত আনা হয়। সেখানে নিহতের পরিবারের লোকদের কাছে মৃতদেহটি হস্তান্তর করা হয়। নিহতের চাচা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাবুল আকতার জানান, বাবা মা ও একমাত্র ছোট বোনকে নিয়ে ঈদের আগের দিন গ্রামের বাড়ি চাঁদটে আসেন ব্যাংক কর্মকর্তা ফারহানা ইসলাম তানিয়া। ঈদের একদিন পর বুধবার সকালে চিকিৎসার জন্য বেনাপল স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে। শুক্রবার গভীর রাতে খাবার খেতে যাওয়ার আগে পরিবারের লোকদের সাথে মোবাইলে তিনি কথা বলেছিলেন। এর কিছু সময় পর খাবার খেয়ে ফেরার পথে শেকসপিয়ার সরণি ও লাউডন ষ্ট্রিটের সংযোগ সড়কে মর্মান্তি সড়ক দুর্ঘটনায় অপর এক বাংলাদেশীর সাথে তানিয়া নিহত হন। ওই রাতেই মোবাইল ফোনে মেয়ে নিহত খবর পান সাবেক সেনা সদস্য বাবা আমিরুল ইসলাম। নিহত ফারহানা ইসলাম তানিয়া সিটি ব্যাংকের গুলশান শাখার সিনিয়র অফিসার পদে কর্মরত ছিলেন। নিহতের বাবা সাবেক সেনা সদস্য আমিরুল ইসলাম বলেন, চিকিৎসার জন্য ব্যাংকের কলিকদের সাথে তানিয়া ভারত গিয়েছিল। দুর্ঘটনার দেড় ঘন্টা আগে মেয়ের সাথে তার শেষ বারের মত কথা হয়। কাজ শেষ করে রবিবার রাতের ফ্লাইটে সে ঢাকায় ফিরবে বলেও জানিয়েছিল।

আরো খবর...