করোনায় আতংক না হয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলুন

ইয়াসিন-মাহমুদা স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে ‘মুজিববর্ষ” উপলক্ষে কুইজ প্রতিযোগিতা ও ‘করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ’ বিষয়ে আলোচনা সভায় ডাঃ ইফতেখার মাহমুদ

নিজ সংবাদ ॥ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী “মুজিববর্ষ” ২০২০ উপলক্ষে কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলাধীন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে সাধারন জ্ঞান ভিত্তিক কুইজ প্রতিযোগিতা ও “করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করনীয়” বিষয়ে আলোচনা সভা  অনুষ্ঠিত হয়েছে। কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার বহলবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে গতকাল শুক্রবার সকালে ইয়াসিন-মাহমুদা স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ নেন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল ও ইয়াসিন মাহমুদা-স্মৃতি পরিষদের সভাপতি প্রফেসর ডাঃ ইফতেখার মাহমুদ। বহলবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আলোচনায় অংশ নেন বঙ্গবন্ধু পরিষদ কুষ্টিয়ার প্রতিষ্ঠাতা সাধারন সম্পাদক শামসুর রহমান বাবু। আলোচনায় অংশ নেন কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের ক্রীড়া ও সমাজকল্যান সম্পাদক আ.ফ.ম নুরুল কাদের, সাদীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম, ছাত্রগাছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ, তাহের মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আব্দুল হালিম ও সাংবাদিক মিলন আলী। সাধারন জ্ঞান ভিত্তিক কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করেন মিরপুর উপজেলার মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শতাধিক শিক্ষার্থী। এতে প্রথম স্থান অধিকার করেন ছত্রগাছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শিমলা আক্তার শিলা। শিমলা ১০০টি প্রশ্নের মধ্যে সবকটির সঠিক উত্তর লিখে ১০০ নম্বর অর্জন করে। দ্বিতীয় স্থান বহলবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সিয়াম উল করিম। তৃতীয় স্থান বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুলের তাসনিম তাবাসসুম অর্পিতা, ৪র্থ একই বিদ্যালয়ের সামিয়া শোভা রাবু, ৫ম একই স্কুলের আফরিন মাহমুদ অমি, ৬ষ্ঠ আখি মিরপুর সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের আক্তার জান্নাতুল, ৭ম স্থান বহলবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সেজান আহমেদ, ৮ম স্থান ছত্রগাছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের রিয়া খাতুন, ৯ম স্থান একই বিদ্যালয়ের নুর আইনী, ১০ স্থান খাদিমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শ্রাবনী খাতুন, ১১তম বহলবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জান্নাতে সুমাইয়া, ১২তম বর্ডার গার্ড স্কুলের আফসা আক্তার ঝর্না এবং ১৩তম স্থান ছাত্রগাছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বাসিরা ফেরদৌসী। মুজিববর্ষ উপলক্ষে এই কুইজ প্রতিযোগিতার বিষয় ছিল মহান ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান, দেশের ইতিহাস ঐতিহ্য, কুষ্টিয়ার ঐতিহ্য, ক্রীড়া, ধর্ম, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ঘটনা নিয়ে ৪শত প্রশ্ন এবং উত্তর মিরপুর উপজেলার ২৫টি স্কুলের তিন শত শিক্ষার্থীর মাঝে বিতরণ করা হয়। উল্লেখিত ৪শত প্রশ্ন থেকে ১০০ প্রশ্নের ১ঘন্টার পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে শিক্ষার্থীদের মাঝে সাধারন জ্ঞান বিষয়ে আগ্রহ বৃদ্ধি পায় সেই সাথে বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ সম্পর্কে তাদের সম্যক ধারনা হয় বলে অভিব্যক্তি ব্যক্ত করে এসব কথা জানান। শিক্ষার্থীদের মধ্যে থেকে বক্তব্য রাখেন শিমলা আক্তার শিলা, তাসনিম তাবাসসুম অর্পিতা, সামিয়া শোভা রাবু, আফরিন মাহমুদ অমি, আক্তার জান্নাতুল, রিয়া খাতুন, নুর আইনী, শ্রাবনী খাতুন, জান্নাতে সুমাইয়া, আফসা আক্তার ঝর্না এবং বাসিরা ফেরদৌসী। প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার ও সনদ বিতরন করা হবে খুব শীঘ্রই। বিজয়ীদের পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানের সময়সুচী পরে জানিয়ে দেয়া হবে। এদিকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ বিষয়ে ডাঃ ইফতেখার মাহমুদ শিক্ষার্থীদের মাঝে আলোচনায় বলেন- জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সব বিচারে সেরা বলা হয়েছে। তার জম্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে পুরো জাতি অধির আগ্রহ নিয়ে নানান কর্মসুচী পালনের অপেক্ষায় রয়েছে। তিনি বলেন করোনা ভাইরাস নিয়ে পুরো বিশ্ব মারাত্বক সংকটে পড়েছে। এই ভাইরাস অত্যন্ত প্রভাব ফেলেছে কিন্ত এর মৃত্যুর পরিমান অনেক কম। ভাইরাস যতই কঠিন হোক না কেন ভাইরাসের প্রতিশোধক তৈরী করতে আল্লাহপাক মানুষকে মেধা দিয়েছেন। এর আগেও মানুষ অনেক ভাইরাসের মোকাবিলা করে প্রতিশোধক তৈরী করে বিশ্বকে শান্ত করা হয়েছে। আশা করছি এই ভাইরাসের প্রতিশোধক তৈরী সেই সাথে এর প্রতিকার রোধে মানুষের মাঝে আতংক কমে আসবে। তিনি বলেন, করোনা সারা বিশ্বকে নাড়া দিয়েছে। চীনে প্রথম শুরু হয়ে অনেক মানুষ মারা গেছে কিন্তু আজ চীনের সেই ভয়াবহতা কমে এসেছে। করোনা ভাইরাস এর আগেও বিশ্বকে স্বাগত জানিয়েছে। এই ভাইরাসের চরিত্র এক এক সময় এক এক রকমের হওয়াতে এর প্রতিশোধক তৈরীতে বিজ্ঞানীরা দিশেহারা। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য সম্পর্কে আমাদের সচেতন হতে হবে। বিশেষ করে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা এবং হাঁচি ও কাশির বিষয়ে সর্বদা যত্ববান হতে হবে। তিনি বলেন, করোনা বিষয়ে সরকারের সদিচ্চা এবং আন্তরিকতা রয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজে এই বিষয়টি মনিটরিং করছেন। প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীকে করোনা ভাইরাসকে সাহসিকতার সাথে মোকাবিলার আহবান জানিয়েছেন। আজ আমাদের প্রধানমন্ত্রীর আহবানে সাড়া দিয়ে সকলকে সচেতন হতে হবে এবং করোনা বিষয়ে আতংক না হয়ে সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় চিকিৎসকের পরামর্শকে গ্রহন করে জীবনযাপন করতে হবে। তিনি নতুন প্রজম্মকে মহান মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস ও বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ সম্পর্কে জানার আগ্রহ সৃষ্টি করা আহবান জানিয়ে বলেন, তোমরা যারা শিক্ষার্থী দেশ তোমাদের দিকে আগ্রহ নিয়ে তাকিয়ে আছে। তোমাদের সত্যিকারের মানুষ হতে হবে। দেশের কান্ডারী হিসেবে যোগ্যভাবে নিজেদের গড়ে তোলার জন্য এই ধরনের আয়োজনের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। তিনি প্রতিযোগিতা এবং অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলকে ইয়াসিন-মাহমুদা স্মৃতি পরিষদের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। উল্লেখ্য, ইয়াসিন-মাহমুদা স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে মিরপুর ও ভেড়ামারা উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিনামুল্যে বিশেষজ্ঞ স্বাস্থ্য সেবা ক্যাম্প পরিচালিত হয়ে আসছে। সেই সাথে গরীব ও দুস্থ্যদের মাঝে সহযোগিতা প্রদান, মেধাবীদের সম্বর্ধনা প্রদানের মাধ্যমে উৎসাহ প্রদান করা হয়ে থাকে। ২০১৩ সাল থেকে এই প্রতিষ্ঠানটি এলাকায় সমাজিক কর্মকান্ড পরিচালিত করার মধ্য দিয়ে এলাকার সাধারন মানুষের মাঝে স্থান করে নিয়েছে।

আরো খবর...