করোনার পরে  ডেঙ্গুর হুমকি

করোনা মহামারী বর্তমানে সংক্রমণের শীর্ষ পর্যায়ে রয়েছে। প্রতিদিন প্রায় তিন হাজার বা তার বেশি মানুষ এই রোগে সংক্রমিত হচ্ছেন। এই সময়ে আবার ডেঙ্গু রোগের মৌসুম এসে গেছে। গত বছর ডেঙ্গু রাজধানী ঢাকায় জনজীবনকে যথেষ্ট বিপদের মধ্যে ফেলেছিল। চিকিৎসকরা বলছেন, করোনা ও ডেঙ্গু যুগপৎ কাউকে সংক্রমিত করলে তার অবস্থা সন্দিহান হবে। এমন রোগীকে বাঁচানো হবে দুঃসাধ্য। ফলে ডেঙ্গু প্রতিরোধেও করপোরেশনগুলোকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। এ কাজ আসলে আরও আগেই শুরু করা উচিত ছিল। প্রতিটি ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে সমস্যা গুরুতর আকার ধারণ করলে আমরা তার পেছন পেছন ছুটে সমাধানের চেষ্টা করি। এতে কাজটা যেমন কঠিন হয়, তেমনি আশানুরূপ ফল পাওয়াও সম্ভব হয় না। এই দুটি রোগই প্রতিরোধের ক্ষেত্রে সরকারি ব্যবস্থার পাশাপাশি জনসাধারণের সচেতন পদক্ষেপ গ্রহণও জরুরি। করোনার ক্ষেত্রে আমরা লক্ষ করছি মানুষ তাদের প্রত্যাশিত আচরণ করছে না। সবার জন্য মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হলেও অনেককেই এ ব্যাপারে উদাসীন দেখা যায়। আর সামাজিক দূরত্ব রক্ষার তো বালাই নেই। বাজারে, পথে এবং পরিবহনে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মানুষ ভিড় ও জটলা করে চলছে। অর্থাৎ পুরনো অভ্যাস বদলাতে পারেনি। তাতে করোনা সংক্রমণ জ্যামিতিক হারে বেড়েই চলেছে। ডেঙ্গু প্রতিরোধে প্রত্যেক বাড়িতে এবং নির্মাণাধীন স্থাপনাতে বৃষ্টির পানি যাতে না জমে তার ব্যবস্থা করার অনুরোধ বা নির্দেশ বারবার করা সত্ত্বেও এ ব্যাপারেও মানুষের ঔদাসীন্য চরম পর্যায়ে রয়েছে। ফলে ঘনবসতিপূর্ণ ঘিঞ্জি শহরে করোনার পাশাপাশি ডেঙ্গুর সংক্রমণ হলেও বিস্মিত হওয়ার কারণ থাকবে না। এজন্য কেবল সরকার এবং করপোরেশনকে  দোষারোপ করে লাভ নেই। আজই নিজেদের দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করতে হবে। আমরা বলব, সময় থাকতে  দেশের সব করপোরেশন ও পৌরসভার উচিত হবে জনসচেতনতামূলক প্রচারণা চালানো। এ ছাড়া গণমাধ্যমকে এই উভয় রোগের প্রতিরোধে সরকার ব্যবহার করতে পারে। এই সময়ে মুদ্রণ ও বৈদ্যুতিক উভয় মাধ্যমের সর্বোচ্চ ব্যবহার কাম্য। আমরা আশা করি এসব প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষও এ ব্যাপারে সর্বাত্মক সহযোগিতা দেবে। সরকার ও জনসাধারণের সম্মিলিত চেষ্টাতেই আমরা চলমান মহামারীর বিপর্যয় থেকে রক্ষা পেতে এবং আরেকটি ভয়ঙ্কর  রোগের সংক্রমণ ঠেকাতে পারি। এ ব্যাপারে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন। আশা করি সরকার, বিশেষত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং স্থানীয় সরকার কর্তৃপক্ষগুলো যথাযথ ভূমিকা পালনে এগিয়ে আসবে।

আরো খবর...