করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্কের কিছু নেই – মোদী

ঢাকা অফিস ॥ ভারতে করোনাভাইরাস নিয়ে নতুন করে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। ইতালি ও দুবাই থেকে আসা দুই ভারতীয়র দেহে এ ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ার পর এ আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিত মোকাবেলায় শেষ পর্যন্ত করোনাভাইরাস নিয়ে ভারতীয়দেরকে আশ্বাসবাণী শুনিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বলেছেন, করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। সংক্রমণ ঠেকাতে কেন্দ্রীয় সরকারের মন্ত্রীরা একযোগে কাজ করছেন। সোমবার করোনাভাইরাসে দিল্লি ও তেলেঙ্গানার দুই ভারতীয়ের আক্রান্ত হওয়ার খবর ছড়াতেই আতঙ্ক দেখা দেয়। তেলঙ্গানার বাসিন্দা, বেঙ্গালুরুতে কর্মরত ২৪ বছর বয়সী এক সফ্টওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারের শরীরে ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ে। এর আগে তিনি বেঙ্গালুরুতে ছিলেন। তাতেই আতঙ্ক ছড়িয়েছে কর্ণাটকে। উদ্বিগ্ন রাজ্য প্রশাসনও। বেঙ্গালুরুর যে এলাকায় ওই ব্যক্তি ছিলেন, সেখানে পৌঁছেছেন রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের কর্মকর্তারা।এলাকার মানুষজনের ওপর নজর রাখা হচ্ছে। এনডিটিভি জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মঙ্গলবার নাগরিকদেরকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, “সরকার সবরকম ব্যবস্থা নিচ্ছে। বিদেশ থেকে যারা ভারতে পা রাখছেন তাদের পর্যবেক্ষণে রেখে শারীরিক পরীক্ষা করা হচ্ছে। তাই আতঙ্কের কিছু নেই। আমাদের একযোগে কাজ করতে হবে। ভাইরাসের আক্রমণ রোধে ন্যূনতম সাবধানতার মাধ্যমে নিজের সুরক্ষা নিজেকেই নিশ্চত করতে হবে।” করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে দেশবাসীকে সচেতন হওয়ার বার্তা দিয়ে টুইটে মোদী লিখেছেন,  “এই মারণ ভাইরাস সংক্রমণ থেকে বাঁচতে সচেতনতা হিসাবে কিছু নিয়ম মেনে চলুন।” বারবার হাত ধোয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। একই সঙ্গে সর্দি কাশি হলে মুখে মাস্ক অথবা মুখ টিসু দিয়ে ঢেকে রাখারও পরামর্শ দিয়েছেন। করোনাভাইরাসের প্রকোপে চিন-সহ বিশ্বে ইতোমধ্যেই মৃত্যুসংখ্যা ৩০০০ ছাড়িয়েছে। ভারতে এখন পর্যন্ত মোট পাঁচ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। যার মধ্যে প্রথম তিনজনই কেরালার বাসিন্দা। চিকিৎসার পর আপাতত সুস্থ তারা। এরপরই নতুন করে দু’জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর এসেছে। তাতেই ভারতজুড়ে উদ্বেগ ছড়িয়েছে।

আরো খবর...