করোনাভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু ৫ হাজার ছাড়াল

ঢাকা অফিস ॥ বিশ্বজুড়ে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া নভেল করোনাভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা দুই লাখ ছাড়িয়ে গেছে; মৃত্যুর সংখ্যা পার করেছে ৫ হাজারের কোঠা। বুধবার ২৪ ঘণ্টাতেই দেশটিতে রেকর্ড ৯০০ জনেরও বেশি লোকের মৃত্যু হয়েছে বলে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যের বরাত দিয়ে জানিয়েছে সিএনএন। মৃতদের মধ্যে কানেকটিকাটের ৬ সপ্তাহের একটি শিশুও আছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। এটিই দেশটিতে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত সবচেয়ে কম বয়সী কারও মৃত্যু বলে ধারণা করা হচ্ছে। ডিসেম্বরের শেষদিকে চীনের হুবেই থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী এ করোনাভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা দুই লাখ ১৬ হাজার ৭২১ জনে দাঁড়িয়েছে বলে বৃহস্পতিবার দুপুর নাগাদ দেওয়া পরিসংখ্যানে জানিয়েছে জনস হপকিন্স। ঘণ্টায় ঘণ্টায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে বলে দেশটির গণমাধ্যমের প্রতিবেদনগুলোতে বলা হচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকারের মজুদে থাকা সুরক্ষা সরঞ্জাম ও চিকিৎসা উপকরণও প্রায় শেষ হয়ে এসেছে বলে ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে। প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন আশ্বস্ত করে বলেছে, তারা পর্যাপ্ত সরবরাহ নিশ্চিত করতে পারবে এবং এজন্য আরও এক হাজার ৬০০ কোটি ডলারের তহবিল রয়েছে। জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে কেবল বুধবারই ২৫ হাজারের বেশি মানুষের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে নিউ ইয়র্কের অবস্থাই সবচেয়ে ভয়াবহ; শহরটিতে একদিনেই এক হাজার তিনশর বেশি মানুষ মারা গেছে। বেশ কয়েকটি করুণ ছবিতে শহরটির হাসপাতালগুলোর বাইরে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ট্রাকবোঝাই অসংখ্য মৃতদেহ দেখা গেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। নিউ অরলিয়ন্স ও ডেট্রয়টেও আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। ফ্লোরিডা, জর্জিয়া ও মিসিসিপিতে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এর ফলে দেশটির ৭৫ শতাংশ জনগোষ্ঠীই এখন লকডাউন বা ঘরবন্দি দশায় আছেন। সংক্রমণ কমিয়ে আনতে নেওয়া নানান পদক্ষেপের পরও যুক্তরাষ্ট্রে কোভিড-১৯ এ দুই লাখ ৪০ হাজারের মতো মানুষ মারা পড়তে পারে বলে দেশটির কর্মকর্তারা আশঙ্কা করছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের গতিপ্রকৃতির সঙ্গে ইতালির ব্যাপক মিল দেখা যাচ্ছে বলে সতর্ক করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। ইতালিতে করোনাভাইরাস এখন পর্যন্ত ১৩ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে যা একক দেশের হিসাবে বিশ্বের সর্বোচ্চ। করোনাভাইরাসের কারণে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এবারই প্রথম যুক্তরাজ্য উইম্বলডন টুর্নামেন্ট বাতিল করেছে। ক্ষতি পুষিয়ে নিতে দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় আর্থিক প্রণোদনার প্রতিশ্র“তি দিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা তিন হাজার ছাড়িয়ে গেছে ইরানে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রিয়েসুস কয়েক দিনের মধ্যে বিশ্বব্যাপী আরও ১০ লাখ লোক আক্রান্ত হতে পারেন বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের হালনাগাদ তথ্য জানাচ্ছে, বিশ্বজুড়ে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা নয় লাখ ৩৭ হাজার ৭৮৩ জন, মৃত্যুর সংখ্যা ৪৭ হাজার ২৭৩ এবং এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন এক লাখ ৯৪ হাজার ৪০৫ জন।

আরো খবর...