করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে ৭ জন রাজশাহী মেডিকেলে

ঢাকা অফিস ॥ করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে রাজশাহীতে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সাতজন ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে চারজনকে ‘করোনা ওয়ার্ডে’ ও তিনজনকে ‘পর্যবেক্ষণ ওয়ার্ডে’ রাখা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় তাদের ভর্তি করা হয়েছে বলে মঙ্গলবার নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. আজিজুল হক আজাদ। আজদ করোনা চিকিৎসক সমন্বয় কমিটির আহ্বায়কের দায়িত্বেও রয়েছেন। তিনি বলেন, “করোনা ওয়ার্ডের চারজন রোগীর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে। তাদের করোনাভাইরাসের উপসর্গ রয়েছে, তবে সেটি বেশি নয়। পরীক্ষার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে তারা আক্রান্ত কি না। “ওই চারজনের মধ্যে রাজশাহী চারঘাটের এক কিশোরী রয়েছে। গত দশদিন ধরে সে জ্বর-সর্দি-কাশিতে ভুগছে। সে এখন অনেকটা সুস্থ। চারঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ‘আইসোলেশন ওয়ার্ডে’ সে চিকিৎসা নিয়েছে। কিন্তু করোনাভাইরাসের পরীক্ষা না করে এলাকাবাসী তাকে গ্রামে ঢুকতে দিচ্ছে না। এ কারণে তাকে রাজশাহীতে পাঠানো হয়েছে।” আজাদ বলেন, “জ্বর-সর্দি-কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে আসা আরও তিনজনকে হাসপাতালের পর্যবেক্ষণ ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। যাদের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হবে না তাদের করোনা ওয়ার্ডে পাঠিয়ে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে। ” এদিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা পরীক্ষার ল্যাবে সোমবার পর্যন্ত গত ছয়দিনে ৯৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে পজেটিভ এসেছে একজনের। বাকি ৯৭ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি বলে জানান ল্যাবের ইনচার্জ ডা. সাবেরা গুলনেহার। আর জেলার সিভিল সার্জন ডা. এনামুল হক জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী নগরে ভারত ফেরত পাঁচজনকে ‘হোম কোয়ারেন্টিন’ রাখা হয়েছে। গত ১০ মার্চ থেকে ৬ এপ্রিল পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টিনে ছিলেন এক হাজার ১১০ জনকে। তাদের মধ্যে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে এক হাজার ১৭ জনকে, বর্তমানে রয়েছেন ৯৩ জন।

 

আরো খবর...