ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥  কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল  শনিবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু সুপার মার্কেটস্থ জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খানের সভাপতিত্বে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলীর পরিচালনায় অডিটোরিয়াম চত্বরে জেলার সকল মুক্তিযোদ্ধাদের উপস্থিতিতে অতিথি হিসেবে আলোচনায় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও কুষ্টিয়া  জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, সহ-সভাপতি শেখ গিয়াস উদ্দীন আহমেদ মিন্টু, চৌধুরী মুর্শেদ আলম মধু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাবু স্বপন কুমার ঘোষ, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাড. আ.স.ম আখতারুজ্জামান মাসুম, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল হক, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি তাইজাল আলী খান, সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদ  চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জেবুননেছা সবুজ, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল ইসলাম স্বপন, ছাত্রলীগ জেলা সভাপতি ইয়াসির আরাফাত তুষার, শ্রমিক লীগ নেতা গোলাম মোস্তফা, স্বেচ্ছাসেবকলীগের জেলা সভাপতি আক্তারুজ্জামান লাবু  প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন- ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণে বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ এর সবদিক নির্দেশনা রয়েছে। বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধুর ভাষণ বাঙালি জাতির স্বাধীনতা ও স্বাধীকার এক অবিস্মরণীয় দিন হিসাবে আখ্যায়িত করে ৭ই মার্চ বাঙ্গালী জাতির কাছে চির স্বরণীয় একটি দিন। আজ ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ। বাঙালি জাতির স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের এক অনন্য দিন। সুদীর্ঘকালের আপোষহীন আন্দোলনের একপর্যায়ে ১৯৭১ সালের এই দিনে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে (তৎকালীন রেসকোর্স ময়দান) বিশাল জনসমুদ্রে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ডাক দেন। এ দিন লাখ লাখ মুক্তিকামী মানুষের উপস্থিতিতে এই মহান নেতা বজ্রকন্ঠে ঘোষণা করেন, “রক্ত যখন দিয়েছি রক্ত আরও দেব, এ দেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাআল্লাহ। এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।”

 

আরো খবর...