এএসপি পরিচয়ে বিয়ে করে ধরা ছাত্রলীগ নেতা

ঢাকা অফিস ॥ সহকারী পুলিশ সুপারের মিথ্যা পরিচয় দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে এক নারীকে বিয়ে ও টাকা আত্মসাতের অভিযোগে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আকিবুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার বাকলিয়া থেকে আকিবকে গ্রেপ্তারের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বাকলিয়া থানার ওসি নেজাম উদ্দিন বলেন, “ভুয়া ফেইসবুক আইডি ব্যবহার করে এএসপি পরিচয়ে এক নারীকে বিয়ে ও প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে আকিবের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলার প্রেক্ষিতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।  আকিবের রাজনৈতিক পরিচয়ের বিষয় নিয়ে ওসি নেজাম উদ্দিন কোনো তথ্য দিতে না পারলেও দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এসএম বোরহান উদ্দিন জানান, সাংগঠনিক সম্পাদক আকিবকে গ্রেপ্তারের খবর তারা শুনেছেন। বিষয়টি কেন্দ্রীয় কমিটিকে জানানোর পর তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী আকিবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান বোরহান। মামলার নথি থেকে জানা যায়, আকিবুল ইসলাম তার ব্যক্তিগত ফেইসবুক আইডি ছাড়াও তাহসান খান প্রিজন নামের আরেকটি ফেইসবুক আইডি চালান। সেই আইডিতে আকিব নিজেকে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) পরিচয় দিয়ে দুই সন্তানের জননী ওই নারীর সাথে পরিচিত হন। ওই নারীর সাথে তার স্বামীর দাম্পত্য কলহের বিষয়টি আকিব জানতে পারেন। গত ৩ জুলাই ওই নারীর ডিভোর্সের পর আকিব বিভিন্ন সময়ে তাকে নিয়ে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়ান এবং অন্তরঙ্গ ছবি তোলেন। ৭ অগাস্ট আকিব ওই নারীকে বিয়ে করে বিভিন্ন হোটেলে এবং বাকলিয়া রাহাত্তার পুল এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে অবস্থান করেন। ওই নারীর অভিযোগ, আকিব চাকরিতে সমস্যার কথা বলে তার কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা ধার নিয়েও পরিশোধ করেননি। এছাড়াও ওই নারীর কাছ থেকে এক লাখ ২৮ হাজার টাকা নিয়ে মোবাইল ফোন, তিন লাখ টাকায় মোটর সাইকেল কেনা ছাড়াও অন্তত ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন আকিব। আকিবের সাথে আরও নারীর সাথে সম্পর্ক থাকার বিষয়টি জানতে পেরে ওই নারী তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে আকিব তার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। পরে খোঁজ নিয়ে আকিব পুলিশ কর্মকর্তা নন এবং তার সাথে প্রতারণার বিষয়টি জানতে পারেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন। এদিকে আকিব গত ২৫ ডিসেম্বর ভাড়া বাসায় গিয়ে পিস্তল ঠেকিয়ে হুমকি দেন বলেও অভিযোগ করেছেন ওই নারী।

আরো খবর...