উন্নত জাতি গঠনে শিক্ষার বিকল্প নেই

কুষ্টিয়ায় কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃত্তি প্রদানকালে ডিসি আসলাম হোসেন

কাঞ্চন কুমার ॥ কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের উদ্যোগে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় কুষ্টিয়া পৌরসভা মিলনায়তনে ২০১৯ সালের এসএসসি, এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা জিপিএ-৫ প্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃত্তি প্রদান করা হয়। কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসেন বলেন, শিক্ষা মানুষকে আলোকিত করে। উন্নত জাতি গঠনে শিক্ষার বিকল্প নেই। তাই আগামী ২০৪১ সালে উন্নত দেশ গঠনে জাতিকে শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে। প্রত্যেক সন্তানের জন্য তাদের পরিবার আদর্শ শিক্ষালয়। তিনি আরো বলেন, সোনা বাংলাদেশ গড়তে হলে, সোনার মানুষ হতে হবে। তিনি দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম শিক্ষার্থীদেরকে সৎ যোগ্য ও দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে নিজেদেরকে গড়ে তোলার আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষা ব্যবস্থাপনাকে সর্বাধিক গুরুত্ব প্রদান করে আসছে। শিক্ষার্থীদের মেধা ও মননের জন্য শিক্ষাবৃত্তি অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। মেধাবী ও দরিদ্র শিক্ষার্থীদের জন্য জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে বৃত্তি প্রদান কার্যক্রম অব্যহত থাকবে। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী মুন্সী মোঃ মনিরুজ্জামান, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জায়েদুর রহমান, জেলা পরিষদের সদস্য নাসির উদ্দিন, আব্দুল বাকী, আসাদুজ্জামান চৌধূরী লোটন, শরিফুল ইসলাম, আব্দুল মজিদ মন্ডল, মুজাহিদুল ইসলাম বাবলু, জান্নাতুল মাওয়া রনি, মায়াবী রোমান্স মল্লিক, রোজি সুলতানা, সহকারী প্রকৌশলী শফিকুল আজম, প্রশাসনিক কর্মকর্তা শাহিনুজ্জামান। জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দারের পরিচালনায় এ সময়ে অনুভূতি ব্যক্ত করে বক্তব্য রাখেন সানআপ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের অধ্যক্ষ শামসুন্নাহার আলো, মিরপুর উপজেলার আট্টিগ্রাম কবিদাদ আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম, কৃতি শিক্ষার্থী পবন প্রমুখ। পরে অতিথিবৃন্দ এসএসসিতে ৬শ’ ৩৫ জন ও এইচএসসিতে ১শ’ ৬৭ জন কৃতি শিক্ষার্থীদের হাতে সনদপত্র এবং শিক্ষাবৃত্তি তুলে দেন।

আরো খবর...