উজবেকিস্তানে ‘ইস্টার্ন মেলোডি ২০১৯’ তে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ

বিনোদন বাজার ॥ গত ২৭-০৮-২০১৯ তারিখ থেকে ৩০-০৮-২০১৯ তারিখ পর্যন্ত উজবেকিস্তানের সমরখন্দ শহরে বিশ্বের ৪০টি দেশের সংস্কৃতি নিয়ে অনুষ্ঠিত হলো জমজমাট ‘ইস্টার্ন মেলোডি ২০১৯’। এটি ছিলো একটি আন্তর্জাতিক উৎসব, যেখানে ৪০টি দেশের শিল্পীদের অংশগ্রহণ ছিলো আকর্ষণীয়।এ উৎসবে বাংলাদেশ থেকে গিয়েছিলো শিল্পকলা একাডেমীর একটি দল। এ দলটির অংশগ্রহণ ছিলো প্রশংসনীয়। এদেশের এতিহ্যবাহী মাটির গান তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন এ প্রজন্মের প্রতিভাবান ও প্রতিশ্রুতিশীল কণ্ঠশিল্পী ক্ষুদে গানরাজ খ্যাত স্মরণ ও বাদশাহ্ বুলবুল। তাদের সঙ্গে ছিলো দেশী বাদ্যযন্ত্র, খমক, খোল, খঞ্জনি, একতারা, দোতারা, হারমোনিয়াম। যন্ত্রসঙ্গীত শিল্পী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উজ্জ্বল ভট্টাচার্য, বাবু, সাজু ও নাসির। দলপ্রধান ছিলেন সোহরাব উদ্দিন। তারা নিজস্ব সংস্কৃতি, সঙ্গীত, বাদ্যযন্ত্র কে সবার কাছে পরিচয় করিয়ে দেবার চেষ্টা করেছেন।এ প্রসঙ্গে স্মরণ উজবেকিস্তানের জনপ্রিয় সংবাদ মাধ্যম ওজবেকিস্টন ২৪ এবং এম.এন.পিকে বলেন, ‘ভাওয়াইয়া গান, বাউল সঙ্গীত এই মাটির গানগুলোতে সাধারণ কিছু শব্দ দিয়ে নিগূঢ় অর্থ বোঝানো হয়। গ্রাম বাংলার সহজ সরল মানুষের জীবনযাপন, তাদের অনুভূতি, নিত্যনৈমিত্তিক কাজকর্ম খুব সাবলীলভাবে ফুটিয়ে তোলা হয় এসব গানে। গ্রষ্টা, সৃষ্টি, আধ্যাত্মিক কথাও বর্ণিত হয় এসব গানে। আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করেছি আমাদের স্বর্ণালী ঐতিহ্যকে তুলে ধরতে।”সমরখন্দ’ নামক একটি টিভি চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচারও করা হয়েছে তাদের পরিবেশনা। বর্ণিল এই উৎসবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী কে.এম. খালিদ। বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতসহ আরও ৪০টি দেশের সংস্কৃতিমন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন এ আয়োজনে। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন উজবেকিস্তানের রাষ্ট্রপতি শওকত মিরজিওয়েভ।

 

আরো খবর...