ইবি’র সাবেক প্রক্টর মাহবুবরসহ তিন শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুদকে অভিযোগ         

ইবি প্রতিনিধি ॥ শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যে ঘুষ গ্রহনের অভিযোগ উঠেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) তিন শিক্ষকের বিরুদ্ধে। আরিফ হাসান খান (নাহিদ) নামে এক ব্যক্তি দুদকে এ অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় অভিযোগকারীকে স্বাক্ষী দেয়ার জন্য তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। অভিযোগ ওঠা তিন শিক্ষক হলেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, সহযোগী অধ্যাপক রুহুল আমীন ও সহকারী অধ্যাপক এস এম আব্দুর রহিম। আগামী রবিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় অভিযোগকারীকে দুর্নীতি দমন কমিশন এর প্রধান কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে স্বাক্ষীকে বক্তব্য প্রদানের জন্য বলা হয়েছে।

দুর্নীতি দমন কমিশনের উপপরিচালক ও অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল মাজেদ স্বাক্ষরিত প্রেরিত চিঠিতে এ তথ্য জানা গেছে।

চিঠিতে জানা গেছে, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, সহযোগী অধ্যাপক রুহুল আমীন ও সহকারী অধ্যাপক এস এম আব্দুর রহিম এর বিরুদ্ধে শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যে ঘুষ গ্রহনের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগের সুষ্ঠু অনুসন্ধানের স্বার্থে বক্তব্য গ্রহণ ও শ্রবণ করা একান্ত প্রয়োজন। অভিযোগ বিষয়ে অনুসন্ধানপূর্বক অনুসন্ধান প্রতিবেদন দাখিলের জন্য মোঃ আব্দুল মাজেদকে অনুসন্ধানী কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে। অভিযোগের বিষয়ে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় দুর্নীতি দমন কমিশন প্রধান কার্যালয়, ১, সেগুনবাগিচা, ঢাকায় উপস্থিত হয়ে অভিযোগকারী আরিফ হাসান খানকে বক্তব্য প্রদান পূর্বক অনুসন্ধান কাজে সহযোগিতার অনুরোধ করা হলো। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিষ্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ জানান, এমন একটি চিঠি দপ্তরে এসেছে। তবে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ড. মোঃ মাহবুবর রহমানের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। যদি জানতাম অবশ্যই আপনাদের জানাতাম।

সুত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যে নিয়ে সাবেক প্রক্টর ড. মোঃ মাহবুবর রহমানসহ কয়েকজন শিক্ষকের জড়িত থাকার অভিযোগে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সংগঠন ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবৃন্দ শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যে জড়িত থাকায় সাবেক প্রক্টর মাহবুবর রহমানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ পাঠান। ইবি কর্মকতা সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও কর্মকর্তা  ফেডারেশনের মহাসচিব মীর মোহম্মদ মোর্শেদুর রহমান জানান, আপনাদের সবই জানা। শুধু এটুকু বলতে চাই, দুর্নীতিবাজ যেই হোক না কোন দেশের প্রচলিত আইনে তার বিচার হওয়া উচিত। এ বিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. শাহীনুর রহমান এর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও সম্ভব হয়নি।

আরো খবর...