ইবিতে “বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিভাগ ও আন্তঃহল ফুটবল কাপ” টুর্ণামেন্টের পুরস্কার বিতরণ

ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী) বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপনের মাহেন্দ্রক্ষণে জাতীয় অনুষ্ঠানের সাথে সম্পর্ক রেখে আবার নিজেদের মত করে বছরব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ক্যাম্পাস মুখরিত থাকবে। তিনি বলেন, আমাদের বিশ^বিদ্যালয় ইতোমধ্যে যে কয়টি ক্ষেত্রে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খ্যাতি অর্জন করেছে তার অন্যতম হলো ক্রীড়া। ড. রাশিদ আসকারী বলেন, আমরা প্রগতিশীল ও আধুনিক বিশ^বিদ্যালয় গড়তে চাই। আমরা চাই শিক্ষার্থীরা লেখাপড়ার পাশাপাশি ক্রীড়া ও সংস্কৃতি চর্চায় মনোযোগী হবে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে আমাদের ক্যাম্পাসকে জঙ্গিবাদ ও মাদকমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। র‌্যাগিংমুক্ত হয়েছে, সেসন জট নেই। তিনি বলেন, এ টুর্ণামেন্টে খেলোয়াড়দের ক্রীড়া নৈপুণ্য দেখে আমি মুদ্ধ হয়েছি। বিজয়ীদের অভিনন্দন এবং বিজিতদের আগামীর জন্য প্রস্তুত হওয়ার আহবান জানাই। গতকাল দুপুরে বিশ^বিদ্যালয়ের ফুটবল মাঠে, বিশ^বিদ্যালয়ের আয়োজেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপন উপলক্ষ্যে বছরব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির অংশহিসেবে “বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিভাগ এবং আন্তঃহল ছাত্র ও ছাত্রী ফুটবল কাপ” টুর্ণামেন্টের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ড. রাশিদ আসকারী এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তৃতায় প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর ও ক্রীড়া কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, আজকের এ টুর্ণামেন্টের গুরুত্ব অনেক। এ টুর্ণামেন্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে উৎসর্গ করা হয়েছে। বন্ধুত্বসুলভ আচরণের মধ্যদিয়ে মুজিববর্ষের সকল ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য তিনি শিক্ষার্থীদের প্রতি আহবান জানান। বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা বলেন, পাকিস্তান আমলে আমাদের প্রচন্ড যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও বাঙালি হওয়ার অপরাধে আমরা জাতীয় পর্যায়ে খেলার সুযোগ পাইনি। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দেশ স্বাধীনের পর আমরা জাতীয় পর্যায়ের খেলার সুযোগ পেয়েছি। তাই এদেশের ক্রীড়াবিদদের ক্রীড়ার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপন করার আহবান জানান। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক ড. মোহাম্মদ সোহেল। উপস্থাপনা করেন শারীরিক শিক্ষা বিভাগের সহকারী পরিচালক প্রশিক্ষক মাবিলা রহমান। মাসব্যাপী বঙ্গবন্ধু ফুটবল কাপ টুর্ণামেন্টে আন্তঃবিভাগ পর্যায়ে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ চ্যাম্পিয়ন এবং ইংরেজি বিভাগ রানার-আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে। অপরদিকে আন্তঃহল ছাত্রী পর্যায়ে দেশরতœ শেখ হাসিনা হল চ্যাম্পিয়ন ও বেগম খালেদা জিয়া হল রানার-আপ এবং ছাত্র হল পর্যায়ে শেখ রাসেল হল চ্যাম্পিয়ন ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল রানার-আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করেন। টুর্ণামেন্টের বিজয়দের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করে অতিথিবৃন্দ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আরো খবর...