ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতাদের ভোটে নির্বাচিত হচ্ছেন না সভাপতি-সম্পাদক

দেড়যুগ পর দৌলতপুর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন কাল

শরীফুল ইসলাম ॥ দেড়যুগ পর অবশেষে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আগামীকাল মঙ্গলবার। তবে দৌলতপুর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগর নেতাদের অন্ধকারে রেখেই দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ নির্বাচিত হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। কে হচ্ছেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সে বিষয়ে জোর প্রচার প্রচারনা না থাকলেও মাঠ পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের অভিমত দেড়যুগ আগের কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকই এবারও বহাল থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে সভাপতির পদের জন্য তেমন প্রতিদ্বন্দ্বিতা না থাকলেও সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক এ্যাড. হাসানুল আসকার হাসু এবং দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ও দৌলতপুর কলেজের অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান খান সুমন-এর নাম সাধারণ নেতা-কর্মীদের মুখে শোনা যাচ্ছে। এছাড়াও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. শরিফ উদ্দিন রিমন সাধারণ সম্পাদকের পদে বহাল থাকছেন এবং এ পদের জন্য সে যোগ্য এমনও মন্তব্য করেছেন মাঠ পর্যায়ের তৃনমুলের নেতা-কর্মীরা।

দৌলতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী ইয়াছিন আলী শফি বলেন, দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান খান সুমন এবারের সম্মেলনে দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য যোগ্য মনে করছি। কারন তাকে আমাদের পাশে সুখে দুখে সবসময় পাওয়া যায়।

দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন উপলক্ষে দৌলতপুরের ১৪ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। তবে সম্মেলন থেকে কোন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটির নাম ঘোষনা করা হয়নি। প্রতিটি ইউনিয়নে একাধিক প্রার্থী ও প্যানেল হওয়ায় দলীয় কোন্দল ও বিশৃঙ্খলা এড়াতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের মঙ্গলবারের সম্মেলন সম্পন্ন হওয়ার পর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটির নাম ঘোষনা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যদিও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের ভোটে বা সমর্থনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদকসহ অন্যান্য পদ নির্বাচিত হওয়ার কথা থাকলেও এর কোনটায় মানা হচ্ছে না।

তবে দৌলতপুর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. শরীফ উদ্দিন রিমন বলেছেন ভিন্ন কথা। তিনি বলেন, মঙ্গলবারের সম্মেলনের দিন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষনা করা হবে। সে লক্ষে জোর প্রস্তুতি চলছে। সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তিনি এবারও প্রার্থী কি না জানতে চাইলে এ্যাড. শরীফ উদ্দিন রিমন বলেন, দিন রাত পরিশ্রম করে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন সম্পন্ন করেছি। দলের সুসময়ে-দু:সময়ে আছি, দলে জন্য কাজ করে যাচ্ছি। আগামীতেও দলের জন্য কাজ করবো। কাজের মূল্যায়ন হলে সাধারণ সম্পাদক পদের বিষয়ে তিনি শতভাগ আশাবাদী। ২০০২ সালে দৌলতপুর উপজেলার তারাগুনিয়া ডাকবাংলো চত্বরে দৌলতপুর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ওই সম্মেলনের ঘোষিত দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটির অনেক সদস্য প্রয়াত হয়েছেন, অনেকে বয়সের ভারে ভারসাম্য হারিয়েছেন। তাই দীর্ঘ প্রায় দেড়যুগ পর আগামীকাল ১৯ নভেম্বর মঙ্গলবার বিকেলে দৌলতপুর কলেজ মাঠে দৌলতপুর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সে লক্ষে প্রস্তুতিও সম্পন্ন করা হয়েছে। এ সম্মেলন থেকে বিএনটি-জামায়াত-জঙ্গী, বিভিন্ন দল থেকে আওয়ামী লীগে যোগদানকারী ও মাদকাশক্ত মুক্ত নবীন প্রবীনদের সমন্বয়ে একটি যোগ্য সুসংগঠিত কমিটি উপহার দেওয়া হোক এমন প্রত্যাশা তৃনমুল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের।

আরো খবর...